আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি

কালানুক্রমিক ঘটনাবলি

০১.০৪.২০২২

♦ আর্থিক সংকটে ধুঁকতে থাকা শ্রীলংকায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেন প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসে।

০২.০৪.২০২২

♦ ইয়েমেনে যুদ্ধরত পক্ষগুলো দুই মাসের যুদ্ধবিরতিতে রাজি হয়।

♦ ভারত ও নেপালের মধ্যে প্রথম যাত্রীবাহী ট্রেনের যাত্রা শুরু।

০৩.০৪.২০২২

♦পাকিস্তানের ডেপুটি স্পিকার কাসিম সুরি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাবকে অসাংবিধানিক আখ্যায়িত করে তা বাতিল করে দেন।

♦ অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে থাকা দ্বীপরাষ্ট্র শ্রীলংকার ২৬ মন্ত্রী একযোগে পদত্যাগ করে। – হাঙ্গেরিতে আইনসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত।

০৪.০৪.২০২২

♦ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের পার্শ্ববর্তী শহর বুচায় রাশিয়া গণহত্যা চালায় বলে অভিযোগ করেন দেশটির প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি।

♦ রাষ্ট্র হিসেবে লেবাননকে দেউলিয়া ঘোষণা করেন দেশটির উপপ্রধানমন্ত্রী সাহেদ আল-সামি ।

♦ আফগানিস্তানে আফিমসহ যাবতীয় মাদক চাষ নিষিদ্ধ করা হয়।

০৫.০৪.২০২২

♦ ইউক্রেন সংকট নিয়ে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের জরুরি বৈঠক অনুষ্ঠিত।

♦ পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে আনা অনাস্থা প্রস্তাবের ওপর শুনানি শুরু করে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট ।

০৬.০৪.২০২২

♦ ইসরায়েলের ক্ষমতাসীন জোট থেকে ইয়ামিনা পার্টির আইনপ্রণেতা ইদিত সিলমান পদত্যাগ করেন।

♦ রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের দুই মেয়ের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র।

০৭.০৪.২০২২

♦ ইউক্রেন ইস্যুতে জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদে রাশিয়ার সদস্যপদ স্থগিত করা হয়।

♦ মার্কিন সুপ্রিম কোর্টে প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারী বিচারপতি হিসেবে কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটে অনুমোদন পান কেতানজি ব্রাউন জ্যাকসন।

♦ ইয়েমেনের প্রেসিডেন্ট আবদু-রাব্বিহ মনসুর হাদি নিজের ক্ষমতা একটি প্রেসিডেন্সিয়াল লিডারশিপ কাউন্সিলের কাছে হস্তান্তর করেন।

০৮.০৪.২০২২

♦ রাশিয়ার কয়লা আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা দেয় জাপান।

♦ তুরস্কের প্রাচীন নগরী ইস্তানবুলে ইসলামী সভ্যতার জাদুঘরের উদ্বোধন করা হয় ।

♦ সম্পূর্ণ বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় প্রথম বাণিজ্যিক মহাকাশ মিশন শুরু।

০৯.০৪.২০২২

♦ ২০২২ সালের জন্য সমগ্র বিশ্বের ১০ লাখ মুসল্লিকে হজ পালনের অনুমতি দেয় সৌদি আরবের হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়।

১০.০৪.২০২২

♦ ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রথম ধাপে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত।

♦ অনাস্থা ভোটে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ক্ষমতাচ্যুত হন।

♦ ক্রান্তীয় ঝড় ‘মেগি’ ফিলিপাইনে আঘাত হানে। স্থানীয় লোকজনের কাছে ঘূর্ণিঝড়টি ‘আগাতন’ নামে পরিচিত।

১১.০৪.২০২২

♦ পাকিস্তানের ২৩তম প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন শাহবাজ শরিফ।

১২.০৪.২০২২

♦ প্রথম ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে করোনায় পার্টি করার জন্য জরিমানার মুখে পড়েন বরিস জনসন।

♦ ইন্দোনেশিয়ার পার্লামেন্টে যৌন সহিংসতা বন্ধে যুগান্তকারী বিল পাস।

♦ শ্রীলংকা বৈদেশিক ঋণের দায় পরিশোধে অপারগতার ঘোষণা দেয়।

১৩.০৪.২০২২

♦ ভারতে ‘প্রধানমন্ত্রী সংগ্রহশালা’ বা প্রধানমন্ত্রী জাদুঘরের উদ্বোধন করা হয়।

♦ ইউক্রেন যুদ্ধে ব্যবহৃত রুশ যুদ্ধজাহাজ ‘মস্কভা’ কৃষ্ণ সাগরে ডুবে যায়।

১৫.০৪.২০২২

♦ ফিলিস্তিনের জেরুজালেমে আল-আকসা মসজিদে ইসরায়েলি পুলিশের হামলায় প্রায় দুইশতাধিক লোক আহত।

১৬.০৪.২০২২

♦ পাকিস্তান পার্লামেন্টের ২৩তম স্পিকার হিসেবে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন রাজা পারভেজ আশরাফ।

১৭.০৪.২০২২

♦ মিয়ানমারে বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের নববর্ষ উপলক্ষে অংসান সু চিসহ ১,৬২৯ জন কারাবন্দিকে সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করে দেশটির সেনা সরকার।

১৮.০৪.২০২২

♦ শ্রীলংকায় ১৭ সদস্যবিশিষ্ট নতুন অ মন্ত্রিপরিষদ গঠন।

♦ যুক্তরাষ্ট্রে বাইডেন প্রশাসনের বাধ্যতামূলক মাস্ক পরা আইন বাতিল করে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার আদালত।

২০.০৪.২০২২

♦ উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে হস্তান্তর করার আনুষ্ঠানিক আদেশ দেয় যুক্তরাজ্যের লন্ডনের ওয়েস্টমিনিস্টার ম্যাজিস্ট্রেট আদালত।

♦ পারমাণবিক অস্ত্র বহনে সক্ষম ‘সারমাত’ নামের আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের (ICBM) সফল পরীক্ষা চালায় রাশিয়া।

২১.০৪.২০২২

♦ দুই দিনের সফরে ভারত যান ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

♦ ইউক্রেনের মারিউপোল দখলের দাবি করেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

২২.০৪.২০২২

♦ শীর্ষ পাম ওয়েল রপ্তানিকারক দেশ ইন্দোনেশিয়া পাম ওয়েল রপ্তানি নিষিদ্ধ করে। এ নিষেধাজ্ঞা ২৮ এপ্রিল থেকে কার্যকর হয়।

২৩.০৪.২০২২

♦ জাপানের কুমামোতো শহরে দুই দিনব্যাপী চতুর্থ এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের পানি সম্মেলন শুরু।

২৪.০৪,২০২২

♦ ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের দ্বিতীয় দফার ভোট গ্রহণ।

আলোচিত বাংলাদেশ

সম্মেলন-বৈঠক

♦ BIMSTEC সম্মেলন (ভার্চুয়াল)।

♦ আয়োজন: পঞ্চম। সময়কাল: ৩০ মার্চ ২০২২। আয়োজক: শ্রীলংকা।

♦ NATO বিশেষ সম্মেলন (ভার্চুয়াল) সময়কাল: ২৪ মার্চ ২০২২।  আয়োজক: বেলজিয়াম।

♦ জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা স্কাউট ক্যাম্প আয়োজন: তৃতীয়, সময়কাল: ২৬-৩০ মার্চ ২০২২ । স্থান: মিঠামইন, কিশোরগঞ্জ ।

♦ আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল এবং বিশ্বব্যাংক গ্রুপের বসন্তকালীন সভা সময়কাল: ১৮-২৪ এপ্রিল ২০২২। স্থান: ওয়াশিংটন ডিসি, যুক্তরাষ্ট্র।

বঙ্গবন্ধু অ্যাওয়ার্ড ফর ওয়াইল্ডলাইফ কনজারভেশন

বিরল, বিপদাপন্ন, বিলুপ্তপ্রায় উদ্ভিদ ও বন্যপ্রাণী সংরক্ষণে বিশেষ অবদানের জন্য ২০১০ সালে পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয় ‘বঙ্গবন্ধু অ্যাওয়ার্ড ফর ওয়াইল্ডলাইফ কনজারভেশন’ চালু করে। প্রত্যেক ক্যাটাগরিতে পুরস্কারপ্রাপ্ত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে ২ ভরি ওজনের স্বর্ণের বাজারমূল্যের সমপরিমাণ নগদ অর্থ ও ৫০ হাজার টাকার চেক এবং সনদপত্র প্রদান করা হয়।

২০২১ সালের বিজয়ী: বন ও বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তা, খ্যাতিমান গবেষক, বিজ্ঞানী, বন্যপ্রাণী সংরক্ষণবাদী ব্যক্তি ও গণমাধ্যম কর্মী/ব্যক্তিত্ব > বখতিয়ার হামিদ (চুয়াডাঙ্গা) • বন্যপ্রাণী বিষয়ক শিক্ষা ও গবেষণা > বন্যপ্রাণী গবেষক ড. মোহাম্মদ আনিসুজ্জামান খান (মরণোত্তর) • বন্যপ্রাণী সংরক্ষণে নিবেদিত প্রতিষ্ঠান টিম ফর অ্যানার্জি অ্যান্ড অ্যানভায়রনমেন্টাল রিসার্চ (TEER); সরকারি আজিজুল হক কলেজ, বগুড়া।

অ্যাবেল পুরস্কার

গণিতের নোবেল খ্যাত ‘অ্যাবেল’ পুরস্কার। ২০০২ সালে আবেল পুরস্কারের প্রবর্তন করা হয়। পুরস্কারের অর্থ মূল্য নরওয়ের মুদ্রায় ৭৫ লক্ষ ক্রোনার। ২০২২ সালে ‘অ্যাবেল’ পুরস্কার লাভ করেন যুক্তরাষ্ট্রের গণিতবিদ ডেনিস পারনেল সালিভান।

বৈশ্বিক শীর্ষ ধনী

প্রকাশ: ৬ এপ্রিল ২০২২। প্রকাশক: ফোর্বস ম্যাগাজিন । প্রতিবেদনের শিরোনাম: Forbes Billionaires 2022 The Richest People In The World.

প্রতিবেদন অনুযায়ী-

♦ মোট ধনকুবের ২,৬৬৮ জন। তাদের মোট সম্পদ ১২,৭ ট্রিলিয়ন মাড। এর মধ্যে নারী ৩২৭ জন। তাদের মোট সম্পদ ১.৫৬ ট্রিলিয়ন মা.ড।

♦ নারীদের মধ্যে বিশ্বের শীর্ষ ধনী ফ্রাঙ্কোইস বেটেনকোর্ট মেয়ার্স। • প্রথমবারের মতো স্থান পায় > ব্যক্তি: ২৩৬ জন • দেশ ৩টি— বার্বাডোজ, বুলগেরিয়া ও উরুগুয়ে।

♦ ধনকুবেরে শীর্ষ দেশ যুক্তরাষ্ট্র ৭৩৫ জন, দ্বিতীয় চীন ৬০৭ জন।

শীর্ষ ৫ ধনী

নাম

পরিচিতি

 

ইলন মাস্ক

স্পেসএক্সের প্রতিষ্ঠাতা ও টেসলার প্রধান নির্বাহী

২১৯

জেফ বেজোস

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান অ্যামাজনের প্রতিষ্ঠাতা

১৭১

বার্নার্ড আর্নল্ট

ফ্রান্সের ফ্যাশন জায়ান্ট LVMH’র প্রধান

১৫৮

বিল গেটস

মাইক্রোসফটের সহ প্রতিষ্ঠাতা

১২৯

ওয়ারেন বাফেট

মার্কিন ব্যবসায়ী

১১৮

কিউএস র‍্যাংকিং

♦ প্রকাশ: ৭ এপ্রিল ২০২২।

♦ প্রকাশক: যুক্তরাজ্যভিত্তিক কোয়াককোয়ারেলি সায়মন্ডস (QS)। রিপোর্টের শিরোনাম: OS World University Rankings

♦ 2022 অন্তর্ভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়: ১,২৯৯টি। র‍্যাংকিং অনুযায়ী—

শীর্ষ বিশ্ববিদ্যালয়: ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি (MIT); যুক্তরাষ্ট্র।

♦ তালিকায় বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান যথাক্রমে ১৮৫তম ও ৩৭৮তম।

রোড সেফটি প্রতিবেদন

♦ প্রকাশ: ৫ মার্চ ২০২২। প্রকাশক: রোড সেফটি ফাউন্ডেশন।

 প্রতিবেদন অনুযায়ী জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে

♦ মোট সড়ক দুর্ঘটনা: ৮৪৮টি > জাতীয় মহাসড়কে: ৩৫৩টি • আঞ্চলিক সড়কে: ২৯৫টি • গ্রামীণ সড়কে: ১৪৩টি • শহরের সড়কে: ৪৬টি • অন্যান্য স্থানে ১১টি

দুর্ঘটনায় নিহত: ১,০১২ জন • আহত: ১,১৪৬ জন।

♦ বিভাগ অনুযায়ী দুর্ঘটনা বেশি: ঢাকা (২৩.২৩%)

♦ বিভাগ অনুযায়ী দুর্ঘটনা কম: সিলেট (৪.৮৩%)।

♦ জেলা অনুযায়ী দুর্ঘটনা বেশি: চট্টগ্রাম 

♦ জেলা অনুযায়ী দুর্ঘটনা কম: সাতক্ষীরা।

হেনলি পাসপোর্ট সূচক

♦ প্রকাশ: এপ্রিল ২০২২।

♦ প্রকাশক: যুক্তরাজ্যভিত্তিক Henley & Partners

♦ অন্তর্ভুক্ত দেশ: ১৯৯টি

♦ সূচকের শিরোনাম: The Henley Passport Index: Q2 2022 Global Ranking.

সূচক অনুযায়ী

♦ সবচেয়ে শক্তিশালী পাসপোর্ট জাপান ও সিঙ্গাপুরের। এ দুই দেশের নাগরিকরা ভিসা ছাড়াই যেতে পারেন অন্তত ১৯২টি দেশে ।

♦ বাংলাদেশের অবস্থান ১০৪তম। বাংলাদেশের পাসপোর্টধারীরা আগাম ভিসা ছাড়াই ৪০টি দেশে ভ্রমণ করতে পারে।

♦ ১১২তম দেশ আফগানিস্তান, ভিসা ছাড়া ভ্রমণ করতে পারে ২৬টি দেশে।

বৈশ্বিক শব্দদূষণ

♦ প্রকাশ: ২৭ মার্চ ২০২২। প্রকাশক : জাতিসংঘ পরিবেশ কর্মসূচি (UNEP)।

♦ অন্তর্ভুক্ত শহর: ৬১টি।

♦ প্রতিবেদনের শিরোনাম: Frontiers 2022: Noise, Blazes and Mismatches

প্রতিবেদন অনুযায়ী

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (WHO) ১৯৯৯ সালের গাইডলাইন অনুযায়ী, আবাসিক এলাকার জন্য শব্দের গ্রহণযোগ্য সর্বোচ্চ মাত্রা ৫৫ ডেসিবল ছিল, বাণিজ্যিক এলাকার জন্য ৭০ ডেসিবল। ২০১৮ সালের সর্বশেষ হালনাগাদ গাইডলাইনে সড়কে শব্দের তীব্রতা ৫৩ ডেসিবলের মধ্যে সীমিত রাখার সুপারিশ করা হয়।

বৈশ্বিক শব্দদূষণ

তম

শহর

দেশ

শব্দের সর্বোচ্চ তীব্রতা

প্রথম

ঢাকা

বাংলাদেশ

১১৯ ডেসিবল

দ্বিতীয়

মুরাদাবাদ

ভারত

১১৪ ডেসিবল

তৃতীয়

ইসলামাবাদ

পাকিস্তান

১০৫ ডেসিবল

চতুর্থ

রাজশাহী, হো চি মিন সিটি

বাংলাদেশ,

ভিয়েতনাম

১০৩ ডেসিবল

পঞ্চম

ইবাদান

নাইজেরিয়া

১০১ ডেসিবল

সবচেয়ে কম শব্দদূষণ হয় অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে, শব্দের তীব্রতা ২০ ডেসিবল; দ্বিতীয় স্পেনের বার্সেলোনা, ২২ ডেসিবল।

বাংলাদেশের আরেক শহর-টাঙ্গাইলে শব্দের তীব্রতা ৭৫ ডেসিবল।

আকসা

ACSA’র পূর্ণরূপ Acquisition and Cross-Servicing Agreement যুক্তরাষ্ট্র সাধারণত ন্যাটো কিংবা তার কোয়ালিশন পার্টনারদের সঙ্গে ACSA স্বাক্ষর করে থাকে। চুক্তির অধীনে মার্কিন বাহিনী খাদ্য, জ্বালানি, গোলাবারুদ এবং সরঞ্জামাদি বিনিময় করে থাকে। এ চুক্তি কোনো দেশের সামরিক অভিযান পরিচালনার কোনো অঙ্গীকার নয়। তৃতীয় দেশের মধ্যেও ACSA হতে পারে। যুক্তরাষ্ট্র ছাড়া জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়া অন্য অনেক দেশের সঙ্গে ACSA স্বাক্ষর করেছে।

বৈশ্বিক মিথেন অঙ্গীকার

বর্তমান বিশ্বে যে তাপমাত্রা বাড়ছে তার এক তৃতীয়াংশের জন্য দায়ী মিথেন গ্যাস। “যেটা তেল ও গ্যাস শিল্প থেকে নিঃসরিত হয়। ক্ষতিকর কার্বন ডাই অক্সাইডের চেয়েও বেশি উষ্ণায়ণ বাড়ায় মিথেন গ্যাস। ২ নভেম্বর ২০২১ স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোতে অনুষ্ঠিত ২৬তম জাতিসংঘ জলবায়ু পরিবর্তন সম্মেলনে (COP26) প্রস্তাব তোলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন (EU) কমিশনের প্রধান উরসুলা ভন ডার লিন। তাদের এ প্রস্তাবের সঙ্গে একমত হয়ে অঙ্গীকারবদ্ধ হয় বিশ্বের শতাধিক দেশ। যারা সবচেয়ে বেশি কার্বন ও মিথেন গ্যাস নিঃসরণ করে থাকে। এর মাধ্যমে ২০৩০ সালের মধ্যে গ্রিন হাউজ গ্যাস মিথেনের নিঃসরণ ২০২০ সালের চেয়ে ৩০ শতাংশ কমিয়ে আনার অঙ্গীকার করা হয়। যুক্তরাষ্ট্র ও EU’র এ উদ্যোগের নাম দেওয়া হয় ‘বৈশ্বিক মিথেন অঙ্গীকার।

ইন্দো-প্যাসিফিক কৌশল

যুক্তরাষ্ট্রের ইন্দো-প্যাসিফিক কৌশলকে (Indo-Pacific Strategy-IPS) ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে চীনের আধিপত্য বিস্তার রোধের একটি উদ্যোগ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ১৯৪১ সালে ভারতীয় ঐতিহাসিক কালিদাস নাগ তার বিখ্যাত India And The Pacific World বইতে ইন্দো-প্যাসিফিক শব্দটি সবার আগে ব্যবহার করেন। তিনি এর দ্বারা সংস্কৃতি ও সভ্যতার মেলবন্ধন ও সমুদ্রপথে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সঙ্গে ভারতের যোগাযোগের ঐতিহ্য ও সম্ভাবনার কথা তুলে ধরেন। ২০০৭ সালে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবে ভারতের পার্লামেন্টে বক্তৃতার সময় ইন্দো-প্যাসিফিক সহযোগিতার বিষয়টি ব্যবহার করেন মূলত জাপান ও ভারতের সম্পর্ক স্থাপনের জন্য। সাম্প্রতিক সময়ে এশিয়া ও বিশ্বব্যাপী চীনের ক্ষমতার বলয়ে প্রবেশে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইন্দো-প্যাসিফিক কৌশলকে মোক্ষম বলে মনে করা হয়। এটি চীনের Belt and Road Initiative (BRI) এর একটি জবাব। যুক্তরাষ্ট্র ইতোমধ্যে ৩০ মে ২০১৮ তার প্রশান্ত মহাসাগরের অঞ্চল হাওয়াই-ভিত্তিক সামরিক কমান্ড United States Pacific Command (USPACOM)-এর নাম নাম পরিবর্তন করে United States Indo-Pacific Command (USINDOPACOM) হিসেবে পুনঃনামকরণ করে। ইন্দো প্যাসিফিক কৌশলের আওতায় যুক্তরাষ্ট্র ব্যাবসা-বাণিজ্য, প্রযুক্তি, নিরাপত্তা এবং বিশেষ করে মেরিটাইম নিরাপত্তা ক্ষেত্রে কাজ করছে । ইন্দো-প্যাসিফিক স্ট্র্যাটেজির সেন্টারপিস বা কেন্দ্রবিন্দুতে বাংলাদেশের অবস্থান। তাই যুক্তরাষ্ট্রের এ উদ্যোগের সাথে যুক্ত হতে বাংলাদেশকে বেশ আগে থেকেই উৎসাহিত করা হচ্ছে। তবে আঞ্চলিক ভারসাম্য বজায় রাখতে বাংলাদেশ কেবল ইন্দো-প্যাসিফিক কৌশলের অর্থনৈতিক উপাদানে যুক্ত হতে আগ্রহী।

বিক্রির পথে বিশ্বের প্রাচীনতম ব্যাংক

দৈউলিয়া হওয়ার মুখে পড়েছে বিশ্বের প্রাচীনতম ব্যাংক ইতালির মন্তে দে পাস্কি দি সিয়েনা । ৩১ মার্চ ২০২২ এ অবস্থা থেকে উত্তরণে পুনর্গঠন পরিকল্পনা হাতে নেয় ইতালির রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ব্যাংকটি । পুনর্গঠন শেষে ঋণদাতা সংস্থাটিকে বেসরকারি মালিকানায় ফিরিয়ে দেওয়া হবে বলে জানায় দেশটির অর্থমন্ত্রী দানিয়েল ফ্রাঙ্কো। বর্তমানে পূর্ববর্তী ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের ২০২২ ২৬ কৌশলগত পরিকল্পনা সংশোধন করা হয়। এটি ইউরোপীয় কর্তৃপক্ষের অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। এসব কার্যক্রম শেষে ব্যাংকটি বিক্রির উদ্যোগ নেওয়া হবে।

ফ্রান্সে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন

ফ্রান্সে সরকার গঠনের নির্বাচন মূলত দুই ভাগে বিভক্ত। একটি প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ও অন্যটি আইনসভা নির্বাচন। প্রথমে দুই দফার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় । প্রথম দফার নির্বাচনে যদি কোনো প্রার্থী ৫০ শতাংশ ভোট পায় তবে দ্বিতীয় দফার নির্বাচনের প্রয়োজন হয় না। পূর্বে ফ্রান্সের নির্বাচি সাথে সমন্বয় করতে এই মেয়াদ কমিয়ে ৫ বছর করা হয়। -সিডেন্টের মেয়াদ ছিল ৭ বছর। কিন্তু আইনসভার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের পর অনুষ্ঠিত হয় আইনসভা নির্বাচন। ফ্রান্সের আইনসভার সদস্য সংখ্যা ৫৭৭। এই নির্বাচনও। দুই ধাপে অনুষ্ঠিত হয়। প্রার্থীদের মধ্যে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়া দুই প্রার্থীর মধ্যে অথবা সর্বনিম্ন ১২.৫% ভোট পাওয়া প্রার্থী আবার দ্বিতীয় দফার নির্বাচনে অংশ নেয়। আইনসভা নির্বাচনে যদি কোনো দলের ২৮৯ জন। প্রতিনিধি নির্বাচিত হলেই সরকার গঠন করতে পারে। ফ্রান্সে নির্বাচনের আরও একটি অন্যতম দিক হলো প্রক্সি ভোট। যদি কোনো নাগরিক বিশেষ কোনো। কারণে ভোট দিতে অপারগ থাকে তবে যথাযথ কর্তৃপক্ষের সামনে তার পক্ষ থেকে অন্য কেউ ভোট প্রদান করতে পারে। এই ক্ষেত্রে প্রক্সি ভোট প্রদানকারীকে অবশ্যই ভোটারের একই কমিউনিটির হতে হবে। এছাড়া প্রবাসী হলে রাষ্ট্রদূতের সামনে প্রক্সি ভোট দিতে হবে।

নির্বাচন ২০২২

ফ্রান্সের নির্বাচনী ব্যবস্থায় প্রত্যেক প্রার্থীকে দেশের সবগুলো। জেলা, শহর, নগরের মেয়র; সিনেটর; পার্লামেন্টের সদস্য; স্থানীয় কাউন্সিলরবৃন্দ; উচ্চপদস্থ সরকারি কর্মকর্তা; ইইউ পার্লামেন্টের ফ্রান্সের সদস্যদের নিয়ে গঠিত ৪৬ হাজার। সদস্যের নির্বাচকমণ্ডলীর নিকট থেকে ন্যূনতম ৫০০ জনের | অনুমোদন পেতে হয়। এবারের নির্বাচনে ১২ জন প্রার্থী প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়। তাদের মধ্যে আটজন পুরুষ ও চারজন নারী। ১০ এপ্রিল ২০২২ ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রথম পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। তবে কোনো প্রার্থী ৫০ শতাংশ ভোট না পাওয়ায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়া দুইজন প্রার্থী মধ্যপন্থী রাজনীতিক ইমানুয়েল ম্যাক্রো ও কট্টর ডানপন্থী মেরিন লা পেনের মধ্যে ২৪ এপ্রিল ২০২২ দ্বিতীয় দফার ভোট অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম দফার ভোটে ইমানুয়েল ম্যাক্রো ২৭.৮৫% ও মেরিন লা পেন ২৩.১৫% ভোট পান। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের পরেও গরম থাকবে ফ্রান্সের রাজনৈতিক মাঠ কারণ ১২ ও ১৯ জুন ২০২২ পার্লামেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

লেবাননকে দেউলিয়া ঘোষণা

দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক অস্থিতিশীলতায় দেউলিয়া হয়ে গেছে পশ্চিম এশিয়ার দেশ লেবানন। ৪ এপ্রিল ২০২২ লেবাননের উপ-প্রধানমন্ত্রী সাদেহ আল সামি রাষ্ট্র হিসেবে লেবাননকে দেউলিয়া ঘোষণা করেন ২০১৯ সালের অক্টোবরে দেশটির দীর্ঘ গৃহযুদ্ধের অবসানের পর থেকে লেবাননের অর্থনীতির পতন শুরু হয়। গৃহযুদ্ধে বিবদমান পক্ষসমূহের নেতারা দেশটির রাজনৈতিক নেতা হিসেবে আবির্ভূত হন এবং নিজেদের ক্ষমতা বাড়ানোর প্রতিযোগিতায় নামেন। নতুন এ রাজনৈতিক নেতাদের তৎপরতায় প্রাথমিক পর্যায়ে অর্থনীতির উল্লম্ফন ঘটলেও পরবর্তীতে সীমাহীন দুর্নীতি ও অব্যবস্থাপনার ফলে ধস নামে। ইতোমধ্যে লেবানিজ পাউন্ডের ৯০% অবমূল্যায়ন ঘটেছে। ফলে খাদ্য, খাবার পানি, স্বাস্থ্য সেবা ও শিক্ষার মতো অতি প্রয়োজনীয় পণ্য নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে। প্রয়োজনীয় জ্বালানির অভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদন কম হওয়ায় দেশটির বেশিরভাগ অঞ্চল ঘন্টার পর ঘন্টা বিদ্যুৎহীন থাকছে।

ইয়েমেনে নতুন নেতৃত্ব

৭ এপ্রিল ২০২২ ইয়েমেনের প্রেসিডেন্ট আবদু-রাব্বিহ মনসুর হাদি নিজের ক্ষমতা একটি প্রেসিডেন্সিয়াল লিডারশিপ কাউন্সিলের কাছে হস্তান্তর করেন। এর ফলে দেশটিতে সাত বছর ধরে চলা গৃহযুদ্ধ অবসানে জাতিসংঘের নেতৃত্বাধীন আলোচনার পথে বাধা দূর হয়। মনসুর হাদি যে কাউন্সিলের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করেন তাতে একজন চেয়ারম্যান এবং সাতজন ডেপুটি রয়েছেন। এ কাউন্সিলের নেতৃত্ব দেবেন রাশাদ আল-আলিমি। আবদু-রাব্বিহ মনসুর হাদির ক্ষমতা হস্তান্তরের পর সৌদি আরব ইয়েমেনি সরকারকে ৩০০ কোটি ডলার আর্থিক সহযোগিতা ঘোষণা করে। এর আগে ২ এপ্রিল ২০২২ প্রথমবারের মতো দুই মাসের যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয় ইয়েমেনের যুদ্ধরত পক্ষগুলো। ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৪ থেকে ইয়েমেনে গৃহযুদ্ধ চলছে। একই বছর হুতিরা রাজধানী সানাসহ ইয়েমেনের উত্তর অংশ দখল করে নেয়। ২০১৫ সাল থেকে সৌদির নেতৃত্বাধীন জোট হুতিদের সঙ্গে লড়াই করছে।

ভারত

প্রধানমন্ত্রী জাদুঘর

১৪ এপ্রিল ২০২২ ভারতের সাবেক ১৪ জন প্রধানমন্ত্রীর অবদান সংরক্ষণের জন্য প্রধানমন্ত্রী সংগ্রহশালা’বা প্রধানমন্ত্রী জাদুঘরের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। যার লক্ষ্য ভারতের তরুণ প্রজন্মকে দেশের প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্ব, দৃষ্টিভঙ্গি ও অবদান সম্পর্কে অনুপ্রাণিত করা। ভারতের প্রধানমন্ত্রী সংগ্রহশালা মূলত পুরোনো এবং নতুনের সংমিশ্রণে তৈরি হয়। এর মধ্যে রয়েছে নেহেরু মিউজিয়াম বিল্ডিং। যেখানে জওহরলাল নেহেরুর জীবন এবং তার অবদান বর্ণনা করা হয়েছে। ভারতের প্রধানমন্ত্রী সংগ্রহশালাটির মোট আয়তন ১০,৪৯১ বর্গমিটার। এ মিউজিয়ামের আর্কিটেকচারাল প্ল্যান প্রধানত ভারত থেকেই অনুপ্রাণিত হয়। ২০১৮ সালে এ মিউজিয়ামটির জন্য ২৭১ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। ভবনের লোগোটি জাতি এবং গণতন্ত্রের প্রতীক। ভারতের প্রধানমন্ত্রী সংগ্রহশালায় সুরদর্শন, চলচ্চিত্র বিভাগ, সংসদ টিভি, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় হলোগ্রাম, ভার্চুয়াল রিয়েলিটি, মাল্টি টাচ, মাল্টি মিডিয়া, ইন্টারেক্টভ কিয়স্ক, কম্পিউটারাইজড কাইনেটিক আর্কিটেকচার এবং স্মার্ট ফোন অ্যাপ্লিকেশন সবই রয়েছে।

বিদ্যুৎ সরবরাহে নেপালের সঙ্গে চুক্তি

বাংলাদেশ-ভুটান-ভারত-নেপাল (BBIN) চুক্তির কাঠামো অনুযায়ী, বাংলাদেশ ও ভুটানকে উৎপন্ন জলবিদ্যুৎ সরবরাহে ২ এপ্রিল ২০২২ চুক্তিবদ্ধ হয় ভারত ও নেপাল। চুক্তি অনুসারে, উভয় দেশ নেপালে যৌথভাবে জলবিদ্যুৎ প্রকল্প নির্মাণ করবে এবং সীমান্ত পারের অন্য দেশে ট্রান্সমিশন লাইন তৈরি করবে। ১৪ মে ১৯৯৭ সার্ক দেশগুলোর মধ্যে ভারত-ভুটান-নেপাল ও বাংলাদেশ নিয়ে গঠিত হয় উপ-আঞ্চলিক BBIN কাঠামো। এ কাঠামোর আওতায় চার দেশের মধ্যে বিদ্যুৎ পরিকাঠামো ও যোগাযোগব্যবস্থা গড়ে তোলা হবে।

ইমরানের পতন মসনদে শাহবাজ

যেভাবে পতন

অর্থনৈতিক অব্যবস্থাপনা ও ভুল পররাষ্ট্রনীতির অভিযোগে পাকিস্তানের বিরোধী দলগুলো দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব আনে। ৭ মার্চ ২০২২ পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ জাতীয় পরিষদে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব জমা দেয় বিরোধী দলগুলো। ২৫ মার্চ ২০২২ প্রস্তাবটি জাতীয় পরিষদে উত্থাপন না করতেই অধিবেশন মুলতবি ঘোষণা করেন স্পিকার আসাদ কায়সার। ২৮ মার্চ ২০২২ বিরোধীদলীয় নেতা শাহবাজ শরীফ প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে পার্লামেন্টে অনাস্থা প্রস্তাব উত্থাপন করেন। কিন্তু বিরোধীদের আনা অনাস্থা প্রস্তাব ‘অসাংবিধানিক’ আখ্যা দিয়ে ৩ এপ্রিল ২০২২ জাতীয় পরিষদের ডেপুটি স্পিকার কাসিম খান সুরি প্রস্তাবটি খারিজ করে দেন এবং অধিবেশন স্থগিত করেন। একই দিন প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শে জাতীয় পরিষদ ভেঙে দিয়ে আগাম নির্বাচনের ঘোষণা দেন প্রেসিডেন্ট আরিফ আলভি। এরপর দেশটির সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ ৮ এপ্রিল ২০২২ সর্বসম্মতভাবে অনাস্থা ভোট খারিজ ও জাতীয় পরিষদ ভেঙে দেওয়ার সিদ্ধান্ত বাতিল করেন। একই সঙ্গে অনাস্থা প্রস্তাবের ওপর ৯ এপ্রিল ২০২২ ভোট গ্রহণের নির্দেশ দেন। নানা নাটকীয়তা শেষে ১০ এপ্রিল ২০২২ রাত দুইটার দিকে পাকিস্তানের পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ জাতীয় পরিষদের অধিবেশনে অনাস্থা প্রস্তাবে ভোটাভুটি অনুষ্ঠিত হয়। ৩৪২ আসনের জাতীয় পরিষদে ইমরান খানের বিরুদ্ধে ভোট পড়ে ১৭৪টি। ১৯ এপ্রিল ২০২২ পাকিস্তানের নতুন মন্ত্রিসভা গঠন করা হয়। এতে ৩১ জন। মন্ত্রী, ৩ জন প্রতিমন্ত্রী এবং ৩ জন উপদেষ্টাকে শপথ বাক্য পাঠ করান সিনেট চেয়ারম্যান পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সাদিক সানজারানি।

উল্লেখযোগ্য মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী

প্রতিরক্ষামন্ত্রী

খাজা মুহাম্মাদ আসিফ

আইন ও বিচারমন্ত্রী

আজম নাজির তারার

অর্থমন্ত্রী

মিফতাহ ইসমাইল

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

হিনা রাব্বানি খার

অভ্যন্তরীণমন্ত্রী

রানা সানাউল্লাহ

মেয়াদ পূর্ণ করতে পারেননি কোনো সরকার প্রধান

১৪ আগস্ট ২০২২ পাকিস্তানের স্বাধীনতা লাভের ৭৫ বছর পূর্তি হবে। ১৯৪৭ সালে স্বাধীনতা লাভ করা দেশটির প্রধানমন্ত্রীর মেয়াদকাল পাঁচ বছর। কিন্তু ৭৫ বছরের ইতিহাসে কোনো প্রধানমন্ত্রীই তার মেয়াদ পূর্ণ করতে পারেননি। এসব নেতাকে সামরিক অভ্যুত্থান, হত্যা, বরখাস্ত, সেনাবাহিনীর চাপসহ নানা কারণে পদ ছাড়তে বাধ্য করা হয়। এ পর্যন্ত দেশটির শাসন ক্ষমতায় প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে সবচেয়ে বেশি প্রভাব বিস্তার করে সেনাবাহিনী। তাদের কারণে সবচেয়ে বেশি সরকার পতন হয়েছে। সামরিক অভ্যুত্থানের কারণে দেশটিতে অন্তত চারটি বেসামরিক সরকার ক্ষমতা ছাড়তে বাধ্য হয়। ২৮ জুলাই ২০১৭ আর্থিক কেলেঙ্কারির অভিযোগে ক্ষমতা হারান নওয়াজ শরিফ। সর্বশেষ পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়ে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানও পূর্বসূরিদের ভাগ্যবরণ করেন।

অনাস্থা ভোটে ক্ষমতাচ্যুত ইমরান খান

১৪ আগস্ট, ১৯৪৭ থেকে শুরু করে আজ পর্যন্ত দেশটির কোনো প্রধানমন্ত্রীই পাঁচ বছর মেয়াদ পূরণ করতে পারেননি। খেলার মাঠ থেকে রাজনীতির ময়দানে নামা ইমরান খান দেশটির ১৫তম সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে জয়লাভ করেন এবং ১৮ আগস্ট, ২০১৮ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন। তিনি ছিলেন পাকিস্তানের ২২তম প্রধানমন্ত্রী। ১০ এপ্রিল, ২০২২ মধ্যরাতে অনাস্থা ভোটের মাধ্যমে ক্ষমতাচ্যুত হন। আর ইমরান খান পাকিস্তানের ইতিহাসে অনাস্থা ভোটে ক্ষমতাচ্যুত হওয়া প্রথম প্রধানমন্ত্রী। এর আগে ১ নভেম্বর, ১৯৮৯ সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টো ও ২৯ আগস্ট, ২০০৬ সাবেক প্রধানমন্ত্রী শওকত আজিজের বিরুদ্ধে পার্লামেন্টে অনাস্থা প্রস্তাব তোলা হয়। তবে উভয়েই সেই ভোটে জিতে ক্ষমতায় টিকে যান।

নতুন প্রধানমন্ত্রী

১১ এপ্রিল, ২০২২ পাকিস্তানের ২৩তম প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন শাহবাজ শরিফ। পাকিস্তানের পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ জাতীয় পরিষদে তার পক্ষে ১৭৪টি ভোট পড়ে। প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহেরিক-ই-ইনসাফের (PTI) নেতারা অধিবেশন বর্জন করেন। ২৩ সেপ্টেম্বর, ১৯৫১ লাহোরে জন্মগ্রহণ করা শাহবাজ শরিফ পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের ছোট ভাই। তিনি ২০ ফেব্রুয়ারি, ১৯৯৭ প্রথম পাঞ্জাব প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচিত হন। ১২ অক্টোবর, ১৯৯৯ সামরিক অভ্যুত্থানে কারারুদ্ধ হন। ৮ জুন, ২০০৮ দ্বিতীয় ও ৮ জুন, ২০১৩ তৃতীয় মেয়াদে প্রদেশটির মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচিত হন। এরপর ১৩ মার্চ, ২০১৮ তিনি পাকিস্তান মুসলিম লিগের (নওয়াজ) সভাপতির দায়িত্ব পান।

অর্থনৈতিক সংকটে বিপর্যস্ত শ্রীলংকা

সাম্প্রতিক পরিস্থিতি

অর্থনৈতিক সংকট মোকাবিলায় সরকারের ব্যর্থতার প্রতিবাদে ৩১ মার্চ, ২০২২ শ্রীলংকার রাজধানী কলম্বোয় প্রেসিডেন্ট ভবনের সামনে বিক্ষোভ শুরু হয়। বিক্ষোভ ঠেকাতে ১ এপ্রিল, ২০২২ জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেন প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসে। পরিস্থিতি আরও খারাপের দিকে যাওয়ার আশঙ্কায় জ্বালানি পাম্পসহ দেশের গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার বাইরে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়। ৩ এপ্রিল, ২০২২ দেশটিতে ফেসবুক, মেসেঞ্জার, ইউটিউব, হোয়াটসঅ্যাপ, ভাইবারসহ বিভিন্ন সামাজিক সেবা বন্ধ করে দেয় শ্রীলংকান সরকার অন্যদিকে শ্রীলংকার প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসে এবং প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে ব্যতীত ২৬ সদস্যবিশিষ্ট মন্ত্রিসভার সবাই একযোগে পদত্যাগ করেন।

বিপর্যয়ের কারণ

শ্রীলংকার বর্তমান অর্থনৈতিক সংকট কেবল পরিবারতন্ত্র বা অনুৎপাদনশীল বৃহৎ ভৌত অবকাঠামো প্রকল্পের জন্য হয়েছে, এমনটি নয়। সংকটের অন্যান্য কারণের মধ্যে রয়েছে অহেতুক করহার হ্রাস, উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে মুদ্রা ছাপানো, অর্গানিক কৃষি চালু করতে সার ও কীটনাশকের ব্যবহার নিষিদ্ধ করা, রেমিট্যান্স ও পর্যটনের মতো সেবা খাতের ওপর অতিরিক্ত নির্ভরতা, ঋণ করে আলংকারিক ভৌত অবকাঠামো প্রকল্প বাস্তবায়ন। এর ফলে ঋণ জিডিপির অনুপাত ১০২ শতাংশে ও ঋণ পরিশোধের দায় ৭ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়ায়। করোনা মহামারির কারণে আরোপিত যাতায়াতের ওপর নিষেধাজ্ঞার ফলে ও রেমিট্যান্সে ভাটা পড়ে। ফলে রিজার্ভে ধস নামে। শ্রীলংকান রুপির অবমূল্যায়নের (প্রতি ডলার ১৯৮ রুপি থেকে ২৯০ রুপি) ফলে আমদানি ব্যয় বিপুল পরিমাণে বেড়ে যায়। ফলে ডিজেল, রান্নার জ্বালানি, সবজি, খাদ্যশস্য, ওষুধের সংকট দেখা দেয় এবং ঋণের দায় পরিশোধ অসম্ভব হয়ে পড়ে। মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা হয়ে ওঠে বিদ্যুৎ উৎপাদন হ্রাস ও এর ফলে সাত-আট ঘণ্টা ব্ল্যাকআউট। এভাবেই সামগ্রিক অর্থনীতি ভেঙে পড়ায় দেশটি এখন দেউলিয়াত্বের সম্মুখীন।

ঋণের ফাঁদে

শ্রীলংকার উন্নয়ন-দর্শনে ‘ঋণ করে হলেও ঘি খাও’ নীতি প্রতিফলিত হয়েছে। আর এ ঋণ দিতে এগিয়ে এসেছে চীন। হাম্বানটোটা আন্তর্জাতিক গভীর সমুদ্রবন্দরের কথাই প্রথম আসবে। শ্রীলংকার সাবেক ও বর্তমান প্রেসিডেন্টের বড় ভাই মাহিন্দা রাজাপাকসে সমালোচকদের ‘এ প্রকল্প বাণিজ্যিক সম্ভাব্যতা বিচারে গ্রহণযোগ্য নয়’ মতামত উপেক্ষা করে এ প্রকল্প গ্রহণ করেন। যখন মানবাধিকার লঙ্ঘনের দায়ে শ্রীলংকা এক ঘরে, তখন ১৬-১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৪ সফরে যান চীনা প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং। তার সফরকালেই প্রচুর ঋণ এবং বিনিয়োগের সূচনা হয়। ২০০৭-২০১৪ সালের মধ্যে চীন হাম্বানটোটা গভীর সমুদ্রবন্দর প্রকল্পটির জন্য পাঁচ কিস্তিতে ১.২৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ঋণ দেয়। প্রথম দিকে ঋণের সুদহার ১-২ শতাংশ ধরা হলেও পরে তা বেড়ে ৬.৩ শতাংশে দাঁড়ায় এবং ঋণ পরিশোধের মেয়াদ সংক্ষিপ্ত করা হয়। ২০১০ সালে প্রকল্প চালু হলেও সেখানে জাহাজ না ভিড়িয়ে, শিপিং কোম্পানিগুলো পার্শ্ববর্তী কলম্বো বন্দর ব্যবহার করে। এ অবস্থায় ২০১৭ সালে চীনা কোম্পানিকে ১.১২ বিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে ৯৯ বছরের জন্য বন্দরের ৮৫ শতাংশ মালিকানা দেওয়া হয়। শ্রীলংকা বন্দর কর্তৃপক্ষ চীনা কোম্পানির সঙ্গে যৌথভাবে বন্দর পরিচালনা করতে থাকে। চীন কলম্বো বন্দর নগরী প্রকল্পে ১.৪ বিলিয়ন বিনিয়োগ করে। এসব প্রকল্পের ফলে চীনের কাছে শ্রীলংকার দায় ২০২০ সালে ৮ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়ায়, যদিও এসব প্রকল্প থেকে আয় বাবদ ঋণ পরিশোধের জন্য পর্যাপ্ত ছিল না। চীন শ্রীলংকাকে বৈদেশিক বাণিজ্য ভারসাম্য সহায়তা ও ১.৪ বিলিয়ন ডলারের কারেন্সি সোয়াপ সুবিধা দেয় এবং চায়না উন্নয়ন ব্যাংক ৫০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের বৈদেশিক মুদ্রায় ঋণসুবিধা ও চীনে অবস্থিত এশীয় অবকাঠামো বিনিয়োগ ব্যাংক (AIIB) ১৮০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সহায়তা দেয়। এভাবে শ্রীলংকা চীনের ঋণ-ফাঁদ নীতির শৃঙ্খলে আষ্টেপৃষ্ঠে আবদ্ধ হয়ে পড়ে। উল্লেখ্য, চীনা ঋণ ছাড়াও শ্রীলংকা আন্তর্জাতিক বন্ডের মাধ্যমে ও অন্যান্য লগ্নিকারক প্রতিষ্ঠান থেকে বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক ঋণ গ্রহণ করে। বর্তমানে শ্রীলংকার মোট বৈদেশিক ঋণের পরিমাণ ৫,১০০ কোটি মার্কিন ডলার।

UNHRC’র থেকে রাশিয়া বাদ

৭ এপ্রিল ২০২২ জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ (UNGA) ইউক্রেনে গণহত্যা ইস্যুতে জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিল (UNHRC) থেকে রাশিয়ার সদস্যপদ বাতিল করা উচিত কিনা’এই প্রশ্নে সদস্যরাষ্ট্রগুলোর মধ্যে ভোটের আয়োজন করে। জাতিসংঘের ১৯৩টি সদস্য দেশের মধ্যে ১৭৫টি দেশ ভোটাভুটিতে অংশ নেয়। এর মধ্যে ৯৩টি দেশ বাতিলের পক্ষে, ২৪টি দেশ বিপক্ষে ও ৫৮টি দেশ ‘অ্যাবস্টেনশন’ (পক্ষে বা বিপক্ষে কোনোটিই নয়) ভোট দেয়। মানবাধিকার পরিষদে রাশিয়ার সদস্যপদ বাতিলের জন্য প্রস্তাবের পক্ষে সাধারণ পরিষদের দুই-তৃতীয়াংশ সদস্যরাষ্ট্রের ভোটের প্রয়োজন ছিল। ৯৩টি সদস্যরাষ্ট্র প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দেওয়ায় তা অর্জিত হয়। যে ৫৮টি রাষ্ট্র ভোট দেওয়া থেকে বিরত ছিল, তাদের অনুপস্থিত হিসেবে ধরা হয়। ১৫ মার্চ ২০০৬ জাতিসংঘ মানবাধিকার কাউন্সিল (UNHRC) গঠিত হয়। ২০২১-২০২৩ মেয়াদে সদস্য ছিল রাশিয়া। UNHRC কোনো দেশকে তাদের সিদ্ধান্ত মানতে বাধ্য করতে পারে না। তবে UNHRC মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়ে তদন্তের অনুমোদন দিতে পারে।

রাশিয়ার বিপক্ষে তিনটি প্রস্তাব পাস

ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক অভিযান শুরুর পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে পশ্চিমা বিশ্ব জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে এখন পর্যন্ত তিনটি প্রস্তাব উত্থাপন করেছে। রাশিয়ার বিরুদ্ধে তিনটি প্রস্তাবই পাস হয় । প্রথম প্রস্তাবে ইউক্রেনে রুশ হামলাকে আগ্রাসন হিসেবে উল্লেখ করে অবিলম্বে হামলা বন্ধে রাশিয়ার প্রতি আহ্বান জানানো হয়। দ্বিতীয় প্রস্তাবটি ছিল ইউক্রেনে মানবিক সহায়তা দেওয়ার আহ্বান সংবলিত। তৃতীয় প্রস্তাবটি আনা হয় রাশিয়াকে মানবাধিকার পরিষদ থেকে বহিষ্কার করার লক্ষ্যে। নীতিগত অবস্থানের কারণে বাংলাদেশ দ্বিতীয় প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দেয়। অন্য দুটি প্রস্তাবে ভোটদানে বিরত ছিল। প্রস্তাব তিনটি—

আয়োজন

তারিখ

পক্ষে

বিপক্ষে

বিরত

অনুপস্থিত

প্রথম

২ মার্চ ২০২২

১৪১

৩৫

১২

দ্বিতীয়

২৪ মার্চ ২০২২

১৪০

৩৮

১০

তৃতীয়

৭ এপ্রিল ২০২২

৯৩

২৪

৫৮

১৮

বুচা গণহত্যা

ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের নিকটবর্তী শহর বুচা। ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২২ ইউক্রেনে হামলা শুরুর কয়েকদিনের মধ্যে অর্থাৎ ২৭ ফেব্রুয়ারি এখানে পৌঁছে যায় রুশ বাহিনী। ৫ সপ্তাহের তুমুল লড়াইয়ের পর বুচা ছাড়ে রাশিয়ান সেনারা। ১ এপ্রিল ২০২২ ইউক্রেনীয় বাহিনী এ শহরে প্রবেশ করে। এরপর রাশিয়ার দখলকৃত শহর বুচায় একটি গণকবরের সন্ধান পাওয়া যায়। ধারণা করা হয় ইউক্রেনের সাধারণ নাগরিকদের হত্যা করে এ গণকবরে ফেলে দেওয়া হয় ।

রুবলে গ্যাস বিক্রি

২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২২ ইউক্রেনে আগ্রাসন চালানোর পর রাশিয়ার ওপর যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপের দেশগুলো ব্যাপক অবরোধ আরোপ করে। নিষেধাজ্ঞার প্রভাব মোকাবিলায় ৩১ মার্চ ২০২২ রাশিয়া পশ্চিমা দেশের কাছে রুবলে গ্যাস বিক্রির ঘোষণা দেয়। এ ঘোষণা ১ এপ্রিল ২০২২ থেকে কার্যকর হয়। রাশিয়া থেকে প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানি করতে হলে এর মূল্য পরিশোধ করতে হবে দেশটির মুদ্রা রুবলে। এ জন্য রাশিয়ার একটি ব্যাংকে বিশেষ হিসাব খুলতে হবে। এর ব্যতিক্রম হলেই দেশটি গ্যাস সরবরাহ চুক্তি স্থগিত করবে। গ্যাসের পর দেশটি নিজস্ব মুদ্রা রুবলে খাদ্য ও শস্য বিক্রির ঘোষণা দেয়।

খেলাধুলা

কলকাতার বিশ্বকাপ

বাছাইপর্ব

জুন ২০১৯-১৪ জুন ২০২২ অনুষ্ঠিত হবে বাছাইপর্ব। এ বাছাই পর্বে ৬টি অঞ্চলে ফিফার ২০৯টি সদস্য বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্বে স্থান পাওয়ার জন্য লড়াই করে। এ পর্যন্ত মোট খেলা: ৮৬১টি এ পর্যন্ত মোট গোল: ২,৪১৮টি। সর্বোচ্চ গোলদাতা— আলি মাবখুত (সংযুক্ত আরব আমিরাত); ১৪টি। বাছাই পর্ব পেরিয়ে প্রথম দল হিসেবে কাতার বিশ্বকাপের মূলপর্বে স্থান পায় জার্মানি।

প্লে-অফ সূচি

♦ এশিয়ান প্লে-অফ: ৭ জুন ২০২২।

♦ ইউরোপীয় প্লে-অফ: ২-৫ জুন ২০২২।

♦ আন্তমহাদেশীয় প্লে-অফ: ১৩-১৪ জুন ২০২২।

প্লে-অফে যারা খেলবে

♦ অস্ট্রেলিয়া ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। এ দুই দলের জয়ী দল আন্তমহাদেশীয় প্লে-অফে দক্ষিণ আমেরিকার পেরুর বিপক্ষে খেলবে।

♦ স্কটল্যান্ড-ইউক্রেন ফাইনালে জয়ী দল ওয়েলসের বিপক্ষে খেলবে।

♦ নিউজিল্যান্ড উত্তর আমেরিকার কোস্টারিকার বিপক্ষে খেলবে।

অফিসিয়াল যা কিছু

গান > ১ এপ্রিল ২০২২ কাতার বিশ্বকাপের অফিসিয়াল গান প্রকাশ করা হয়। এবারের বিশ্বকাপের থিম সং Hayya Hayya (Better Together) কণ্ঠ দেন কাতারের গায়িকা আয়েশা, নাইজেরিয়ার তারকা সংগীতশিল্পী ডাভিদো ও মার্কিন সংগীত শিল্পী ত্রিনিদাদ কার্ডোনা।

মাসকট > ১ এপ্রিল ২০২২ কাতার বিশ্বকাপের অফিসিয়াল মাসকট প্রকাশ করা হয়। মাসকটের নাম La’eeb । আরবি ভাষায় La’eeb কথার অর্থ হলো বিশেষ দক্ষতাসম্পন্ন একজন খেলোয়াড়। আরবের মানুষের মতো পোশাক পরা একজনকে বল নিয়ে দেখা যাচ্ছে। এ মাসকট মানুষ না অন্য কোনো প্রাণী, সেটা অবশ্য বলা হয়নি।

 বল > ৩০ মার্চ ২০২২ উন্মোচন করা হয় কাতার বিশ্বকাপের অফিসিয়াল ম্যাচ বল । বলের নাম আল রিহলা (Al Rihla)। ইবনে বতুতার ভ্রমণ আর জীবনের গল্প নিয়ে যে বই লেখা, তার নামে বলটার নাম— আল রিহলা। আরবি ভাষার ‘আল রিহলা’র বাংলা অর্থ ‘যাত্রা’ বা ‘ভ্রমণ’। স্বাগতিক দেশের সংস্কৃতি, স্থাপত্য, প্রতীকী নৌকা ও তাদের পতাকার রংয়ের মিশেলে তৈরি করা হয় কাতার বিশ্বকাপের বলটি। বিশ্বকাপ ইতিহাসে বাতাসে সবচেয়ে দ্রুতগতির বল হবে এটি। যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে ১৬৫ ডলার আর যুক্তরাজ্যে এ বলটি পাওয়া যাবে ১৩০ পাউন্ডে। সেই ১৯৭০ সাল থেকে জার্মানির ক্রীড়াসামগ্রী প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান অ্যাডিডাস বিশ্বকাপের বল তৈরি করে আসছে। ফিফার সঙ্গে যৌথ প্রযোজনায় ১৪তম বারের মতো বিশ্বকাপের আনুষ্ঠানিক বল উপহার দিচ্ছে তারা।

স্টেডিয়াম কখন

নাম

অবস্থান

উদ্বোধন

দর্শক ধারণ ক্ষমতা

অনুষ্ঠিতব্য ম্যাচ

লুসাইল আইকনিক স্টেডিয়াম

লুসাইল

২২ নভেম্বর ২০২১

৮০,০০০

১০

আল বায়েত স্টেডিয়াম

আল খোর

৩০ নভেম্বর ২০২১

৬০,০০০

স্টেডিয়াম ৯৭৪

দোহা

৩০ নভেম্বর ২০২১

৪০,০০০

আল তুমামা স্টেডিয়াম

দোহা

২২ অক্টোবর ২০২১

৪০,০০০

এডুকেশন সিটি স্টেডিয়াম

আল রাইয়ান

১৫ জুন ২০২০

৪৫,৩৫০

আহমেদ বিন আলী স্টেডিয়াম

আল রাইয়ান

১৮ ডিসেম্বর ২০২০

৪০,৭৪০

খলিফা আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম

আল রাইয়ান

১৯৭৬

৪৫,৪১৬

আল-জানোর স্টেডিয়াম

আল ওয়াকরা

১৬ মে ২০১৯

৪০,০০০

আল-রাইয়ান স্টেডিয়াম নামে বেশি পরিচিত * পূর্বনাম আল ওয়াকরা স্টেডিয়াম * ইতিহাসে প্রথম যে স্টেডিয়ামটি বিশ্বকাপের পর ভেঙে ফেলা হবে, তার নাম স্টেডিয়াম ৯৭৪।

রেকর্ডময় কাতার বিশ্বকাপ

মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশে প্রথম বিশ্বকাপ।

এশিয়াতে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় বিশ্বকাপ (প্রথম ২০০২ সালে দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানে)।

আরব বিশ্বে প্রথম বিশ্বকাপ। মধ্যপ্রাচ্যে প্রথম বিশ্বকাপ।

নভেম্বর-ডিসেম্বরে হতে যাওয়া প্রথম বিশ্বকাপ।

এবারই প্রথম বিশ্বকাপ হবে যেখানে এক স্টেডিয়াম থেকে অন্য স্টেডিয়ামে যেতে মাত্র এক ঘণ্টা সময় লাগবে।

গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ

উদ্বোধনী ম্যাচ

২১ নভেম্বর

আল-বায়েত স্টেডিয়াম

কোয়ার্টার ফাইনাল

৯ ডিসেম্বর

এডুকেশন সিটি স্টেডিয়াম

১০ ডিসেম্বর

আল-বায়েত স্টেডিয়াম

সেমিফাইনাল

১৩ ডিসেম্বর

লুসাইল আইকনিক স্টেডিয়াম

১৪ ডিসেম্বর

আল-বায়েত স্টেডিয়াম

তৃতীয় স্থান নির্ধারণী

১৭ ডিসেম্বর

খলিফা আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম

ফাইনাল

১৮ ডিসেম্বর

লুসাইল আইকনিক স্টেডিয়াম

বিভিন্ন বিশ্বকাপে বাদ পড়া দেশ

ইতালি > ১৯৫৮, ২০১৮, ২০২২। উরুগুয়ে > ১৯৯৪, ১৯৯৮, ২০০৬। নেদারল্যান্ডস > ১৯৮৬, ২০০২, ২০১৮। ফ্রান্স > ১৯৯০, ১৯৯৪। আর্জেন্টিনা > ১৯৭০। স্কটল্যান্ড > ১৯৭০। রাশিয়া > ১৯৭৮, ২০২২। যুগোস্লাভিয়া > ১৯৯৪। পর্তুগাল > ১৯৯৮। চিলি > ২০১৮। নাইজেরিয়া > ২০০৬, ২০২২।

বিচিত্রতা

♦ প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্বে অংশ নিবে স্বাগতিক দেশ কাতার। সর্বশেষ দল হিসেবে ২০১৮ বিশ্বকাপে চূড়ান্ত পর্বে খেলার সুযোগ লাভ করে দক্ষিণ আমেরিকার দেশ পেরু; ১৫ নভেম্বর ২০১৭।

♦ আরব দেশের বিশ্বকাপে আরব বিশ্ব থেকে অংশগ্রহণকারী দেশ এখন পর্যন্ত তিনটি মরক্কো, তিউনিসিয়া ও সৌদি আরব।

♦ ২০২২ সালে ৩৬ বছর পর বিশ্বকাপ খেলার সুযোগ পেয়েছে কানাডা। সেই ১৯৮৬ মেক্সিকো বিশ্বকাপের পর আবারও কাতার বিশ্বকাপে দেখা যাবে তাদের। ১৯৮৬ সালে নিজেদের প্রথম বিশ্বকাপে তিন ম্যাচে হেরে এবং কোনো গোল না করে বিদায় নেওয়ার পর আর বিশ্ব আসরে পা রাখা হয়নি কানাডার।

♦ ২০০৬ সালের পর অর্থাৎ ১৬ বছর পর বিশ্বকাপে নেই সুপার ঈগল খ্যাত নাইজেরিয়া।

♦ চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইতালি ১৯৫৮ সালের পর এই প্রথম টানা দুটি বিশ্বকাপের (২০১৮ ও ২০২২) চূড়ান্ত পর্বে অংশ নিতে ব্যর্থ হয়।

সরথি যারা ও ড্র

চূড়ান্ত হয়েছে ২০২২ বিশ্বকাপ ফুটবলের ২৯টি দলের নাম। স্বাগতিক হিসেবে সরাসরি বিশ্বকাপ খেলবে কাতার। বাকী তিনটি দলের নাম জানা যাবে ১৪ জুন আন্তঃকনফেডারেশন প্লে-অফ শেষে। তার পূর্বেই ১ এপ্রিল ২০২২ কাতারের দোহা এক্সিবিশন অ্যান্ড কনভেনশন সেন্টারে (DECC) বিশ্বকাপের ড্র অনুষ্ঠিত হয়। ড্রয়ের নিয়ম অনুযায়ী, একই কনফেডারেশনের দুটি দল একই গ্রুপে পড়তে পারবে না। ব্যতিক্রম কেবল ইউরোপের দলগুলোর ক্ষেত্রে। একটি গ্রুপে একাধিক ইউরোপীয় দল থাকতে পারবে। তবে কোনো গ্রুপেই দুটির বেশি ইউরোপীয় দল থাকবে না।

Leave a Reply