আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি

কালানুক্রমিক ঘটনাবলি

০১.০৯.২০২০   

♦ দুর্নীতির অভিযোগে ডিক্রি জারি করে সৌদি রাজপরিবারের দুই সদস্যসহ ৬ প্রতিরক্ষা কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করেন দেশটির বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ।

♦ সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সাথে বৈঠক করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জামাতা ও সিনিয়র উপদেষ্টা জ্যারড কুশনার।

০২.০৯.২০২০   

♦ ৭৭তম ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসব শুরু।

♦ আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতে গাম্বিয়ার দায়ের করা রোহিঙ্গা গণহত্যা সংক্রান্ত মামলায় যুক্ত হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করে যৌথ বিবৃতি প্রদান করেন কানাডা ও নেদারল্যান্ডসের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা।

০৩.০৯.২০২০   

♦ কুয়েতে প্রথমবারের মতো শপথ গ্রহণ করেন আট নারী বিচারক।

০৪.০৯.২০২০   

♦ ৫৯তম মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডাকযোগে আগাম ভোটগ্রহণ শুরু।

♦ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যস্থতায় একটি অর্থনীতি চুক্তিতে সাক্ষর করেন সার্বিয়ার প্রেসিডেন্ট আলেক্জান্ডার ভুসিক ও কসোভোর প্রধানমন্ত্রী আব্দুল্লাহ হোতি।

০৬.০৯.২০২০   

♦ যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায় সাক্ষরিত শান্তি চুক্তির প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ইসরায়েলের মধ্যে সরাসরি টেলিফোন পরিষেবা চালু।

♦ জাপানের দক্ষিণাঞ্চলে আঘাত হানে শক্তিশালী টাইফুন ‘হাইশেন’।

০৭.০৯.২০২০  

♦ সাংবাদিক জামাল খাসোগি হত্যার চূড়ান্ত রায় প্রদান করে সৌদি আদালত।

♦ Hypersonic Technology Demonstrator Vehicle (HTDV) এর সফল উৎক্ষেপণের মধ্য দিয়ে হাইপারসনিক যুগে প্রবেশ করে ভারত ।

০৮.০৯.২০২০ 

♦ ধর্ম অবমাননার দায়ে আসিফ পারভেজ নামের এক খ্রিস্টান যুবকের মৃত্যুদণ্ড প্রদান করেন পাকিস্তানের লাহোরের স্থানীয় আদালত।

০৯.০৯.২০২০   

♦ আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে রাস্তার পাশে বোমা বিস্ফোরণে নিহত ১০; অল্পের জন্য ভাইস প্রেসিডেন্ট আমরুল্লাহ সালেহ-র-প্রাণ রক্ষা।

♦ গ্রিসের বৃহত্তম অভিবাসী শিবির লেসবস দ্বীপের মোরিয়া আশ্রয় শিবির ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ভস্মীভূত।

♦ টাইফুন ‘মায়সাক’-এর আঘাতে উত্তর কোরিয়ার প্রায় ৬০টি সেতু ও ২ হাজারের বেশি বাড়িঘর বিধ্বস্ত।

১০.০৯.২০২০   

♦ আনুষ্ঠানিকভাবে ভারতীয় বিমান বাহিনীর ১৭ নম্বর স্কোয়াড্রোনে অন্তর্ভুক্ত হয় পাঁচটি রাফাল যুদ্ধবিমান।

১১.০৯.২০২০    

♦ জাপানের সাথে BREXIT-পরবর্তী প্রথম গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্য চুক্তি ঘোষণা করে যুক্তরাজ্য।

♦ ইসরাইল ও বাহরাইনের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের ঘোষণা দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

♦ যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইলের বিরোধিতার মধ্যেই জাতিসংঘে কোভিড-১৯ মহামারি সম্পর্কে ‘ব্যাপক ও সমন্বিত সাড়া’ দেয়ার বিষয়ে একটি প্রস্তাব পাস।

১২.০৯.২০২০  

♦ কাতারের রাজধানী দোহায় মার্কিন মধ্যস্থতায় আফগানিস্তান সরকার ও তালেবান প্রতিনিধিদের মধ্যে প্রথমবারের মতো ঐতিহাসিক শান্তি আলোচনা শুরু।

♦ ৭৭তম ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসব আয়োজনে সেরা ছবি পুরস্কার ‘গোল্ডেন লায়ন’ জিতেছে মার্কিন চলচ্চিত্র ‘নোম্যাডল্যান্ড’।

১৪.০৯.২০২০   

♦ ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারাতে নবনির্মিত চ্যান্সারি কমপ্লেক্সের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

♦ পবিত্র নগরী জেরুজালেমের সিলওয়ান শহরের কাক্কা বিন আমর মসজিদ ভাঙার আদেশ দেয় ইহুদিবাদী ইসরাইলি আদালত।

১৫.০৯.২০২০   

♦ জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৫তম অধিবেশন শুরু।

♦ ইহুদিবাদী রাষ্ট্র ইসরাইলের সাথে সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণে আনুষ্ঠানিক চুক্তি সাক্ষর করে দুই আরব দেশ-সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন।

১৬.০৯.২০২০   

♦ জাপানের নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন ইউশিহিদে সুগা।

♦ ক্যাটাগরি-২ মাত্রার শক্তি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের আলাবামা উপকূলে আঘাত হানে গ্রীষ্মকালীন হ্যারিকেন ‘স্যালি’।

♦ আরব আমিরাত-বাহরাইন-ইসরায়েল চুক্তি স্বাক্ষরের ঘণ্টার মধ্যেই গাজায় ব্যাপক রকেট হামলা চালায় ইসরায়েল।

♦ লিবিয়ার জাতিসংঘ সমর্থিত সরকারের (GNA) প্রধানমন্ত্রী ফায়েজ আল সারাজের অক্টোবরের শেষে পদত্যাগের ঘোষণা।

১৭.০৯.২০২০   

♦ বিতর্কিত কৃষি বিলের প্রতিবাদে ভারতীয় মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেন পাঞ্জাবের অকালি দলের নেত্রী হরসিমরথ কৌর বাদল।

♦ সন্তানের জাতীয় পরিচয়পত্রে বাবার পাশে মায়ের নাম যুক্ত করা সংক্রান্ত আইনের সংশোধনীতে সাক্ষর করে আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি।

১৮.০৯.২০২০   

♦ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের মুক্তধারা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ২৯তম নিউইয়র্ক বাংলা বইমেলা শুরু।

♦ কোভিড-১৯ আক্রান্ত অক্সিজেন-স্বল্পতায় ভুগতে থাকা রোগীদের জন্য ডেক্সামেথাসন স্টেরয়েড ব্যবহারের অনুমোদন দেয় ইউরোপের ওষুধ সংস্থা (ইএমএ)।

১৯.০৯.২০২০   

♦ আফগান সেনা কর্তৃক তালেবানদের ওপর পরিচালিত একাধিক বিমান হামলায় ৩০ তালেবান নিহত।

♦ ইরানের বিরুদ্ধে একতরফা জাতিসংঘের সব নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালের ঘোষণা দেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও।

২০.০৯.২০২০  

♦ ইতালির পার্লামেন্টে সংসদ সদস্যের সংখ্যা কমাতে দু’দিনব্যাপী গণভোট শুরু।

২১.০৯.২০২০   

♦ করোনা প্রতিরোধী কোনো টিকা পাওয়া গেলে তা বিশ্বজুড়ে দ্রুত ও ভারসাম্যপূর্ণ বিতরণের উদ্দেশ্যে এক ঐতিহাসিক চুক্তিতে সম্মত হয় বিশ্বের ১৫৬টি দেশ।

২৩.০৯.২০২০  

♦ জনসন অ্যান্ড জনসন যুক্তরাষ্ট্রের প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস টিকার তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা শুরু করে।

♦ পূর্ব ভূমধ্যসাগরীয় গ্যাস ফোরাম গঠন সংক্রান্ত সনদ সাক্ষরিত।

♦ প্রেসিডেন্টকে অভূতপূর্ব ক্ষমতা প্রদানের লক্ষ্যে শ্রীলংকার সংসদে সংবিধান সংশোধনী বিল উত্থাপন।

২৯.০৯.২০২০   

♦ ৫৯তম মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ওহাইও অঙ্গরাজ্যে অনুষ্ঠিত প্রথম দফা প্রেসিডেন্সিয়াল বিতর্কে অংশ নেন দেশটির প্রধান দুই রাজনৈতিক দলের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প ও জো বাইডেন।

৩০.০৯.২০২০  

♦ জাতিসংঘ সদর দপ্তরে জীববৈচিত্র্য সম্মেলন অনুষ্ঠিত।

 

আলোচিত বিশ্ব

শান্তিরক্ষী পাঠানোয় আবার প্রথম বাংলাদেশঃ

৬,৭৩১ জন শান্তিরক্ষী পাঠানোর মধ্য দিয়ে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনে শান্তিরক্ষী পাঠানো দেশ হিসেবে আবারও প্রথম হয়েছে বাংলাদেশ। এদিকে সেনাবাহিনীর মেজর জেনারেল মো. মাঈন উল্লাহ চৌধুরী দক্ষিণ সুদানে শান্তিরক্ষা মিশনের ডেপুটি ফোর্স কমান্ডার নির্বাচিত হয়েছেন। গত ১২ সেপ্টেম্বর আইএসপিআর পৃথক বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানিয়েছে। আইএসপিআরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ১৭ জুলাই সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিকে ১৬০ জন জনবলের কিউআরএফ (কুইক রি−অ্যাকশন ফোর্স) মোতায়েনের মাধ্যমে বাংলাদেশ প্রথম স্থান অধিকার করে। বর্তমানে শান্তিরক্ষী মিশনে সৈন্য প্রেরণকারী দেশের সংখ্যা ১১৯। বাংলাদেশ সর্বমোট ৬,৭৩১ জন শান্তিরক্ষী মোতায়েন করেছে। বাংলাদেশের পর ৬,৬৬২ জন শান্তিরক্ষী মোতায়েন করে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ইথিওপিয়া। উপমহাদেশের মধ্যে ভারত ৫,৩৫৩ জন ও পাকিস্তান ৪,৪৪০ জন শান্তিরক্ষী মোতায়েন করে পঞ্চম ও ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে।

পৃথিবীকে রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর পাঁচ প্রস্তাবঃ

জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ধ্বংসের হাত থেকে পৃথিবী ও মানবজাতিকে রক্ষার আহবান জানিয়ে পাঁচটি প্রস্তাব দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ জাতিসংঘ সদর দপ্তরে ‘ক্লাইমেট অ্যাকশন’ বিষয়ক উচ্চ পর্যায়ের এক গোলটেবিল বৈঠক ভিডিও বার্তায় এ প্রস্তাব দেন তিনি।

পৃথিবী ও মানবজাতির সুরক্ষায় আন্তর্জাতিক সহযোগিতা বাড়ানো

বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধি ১.৫° সেলসিয়াসের কম রাখা এবং প্যারিস চুক্তির সবগুলো অনুচ্ছেদের বাস্তবায়ন

 জলবায়ু পরিবর্তনে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোকে প্রতিশ্রুত তহবিল সরবরাহ করা

দূষণকারী দেশগুলো অবশ্যই জাতীয় নির্ধারিত অবদান (NDC) পূরণে প্রয়োজনীয় প্রশমন ব্যবস্থা নেয়া

জলবায়ু উদ্বাস্তুদের পুনর্বাসনকে বৈশ্বিক দায়িত্বের স্বীকৃতি দেয়া।

বাংলাদেশের সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনঃ

         কূটনৈতিক স্থাপন করা সর্বশেষ ৪ দেশ

দেশ

কূটনৈতিক কার্যক্রম শুরু

সান ম্যারিনো

১৫ মে ২০১৭

কসোভো

১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

পালাউ

১৮ জুলাই ২০১৯

সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস

৩১ আগস্ট ২০২০

জাতিসংঘভুক্ত ১৯৩ টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের কূটনৈতিক মিশন কূটনৈতিক সম্পর্ক পরিস্থিতিঃ

ক্যাটাগরি

রয়েছে

নেই

কূটনৈতিক মিশন বা দূতাবাস

৫৮টি

১৩৫টি

কূটনৈতিক সম্পর্ক

১৫৪টি

৩৯টি

♦ বাংলাদেশের সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপিত না হওয়া ৩৯ টি দেশের মধ্যে ইসরাইল ছাড়াও কঙ্গো, রুয়ান্ডা, শাদ, বেনিন, টোগো, টোঙ্গা ও দক্ষিণ সুদান অন্যতম।

♦ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাসনামলে বাংলাদেশ বিশ্বের ১১৬টি দেশের স্বীকৃতি লাভ করে।

ভুটানের সাথে প্রথম PTA:

১৪সেপ্টেম্বর ২০২০ মন্ত্রিসভার বৈঠকে অনুমোদিত হয় ভুটানের সাথে বাণিজ্য সুবিধা সম্প্রসারণের লক্ষ্যে অগ্রাধিকারমূলক বাণিজ্য চুক্তি বা Preferential Trade Agreement (PTA)। এর ফলে প্রথমবারের মতো কোনো দেশের সাথে দ্বিপক্ষীয় PTA হতে যাচ্ছে বাংলাদেশের। এর আগে ১৯৯৩ সালে আঞ্চলিক সহযোগিতার লক্ষ্যে এ অঞ্চলের দেশেগুলো দক্ষিণ এশিয়া অগ্রাধিকার বাণিজ্য  চুক্তি (SAPTA) করেছিল, যা ২০০৪ সালে ‘দক্ষিণ এশিয়া মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি’তে (SAPTA) পরিণত হয়। বর্তমানে SAPTA’র আওতায় উভয় দেশ পরস্পরকে বেশ কিছু পণ্যে শুল্কমুক্ত সুবিধা দেয়। এখন দ্বিপক্ষীয় ভিত্তিতে আরও কিছু পণ্যে শুল্কমুক্ত সুবিধা মিলবে। নতুন চুক্তি কার্যকর  হলে ভুটানকে আরও ১৬টি পণ্যে সুবিধা দেবে বাংলাদেশ। এছাড়া ভুটানের কাছ থেকে বাংলাদেশ শতাধিক পণ্যে শুল্কমুক্ত ‍সুবিধা পাবে। ইতিমধ্যে উভয় দেশের মধ্যে এসব পণ্যের তালিকা বিনিময়  হয়েছে। উভয় পক্ষের সম্মতিতে তালিকা চূড়ান্ত করা হবে। মূলত LDC হিসেবে বিভিন্ন বাজারে শুল্কমুক্ত সুবিধা থাকায় এতদিন দ্বিপক্ষীয় FTA বা PTA’র প্রয়োজনীয়তা অনুভূত হয়নি বাংলাদেশের। ২০২৪ সালে স্বল্পোন্নত দেশ থেকে বের হলে শুল্কমুক্ত সুবিধা থাকবে না । এ কারণে এখন FTA বা PTA সাক্ষরে জোর দেয় বাংলাদেশ । অন্তত এক ডজন দেশের সাথে FTA বা PTA সম্ভাব্যতা যাচাই করা হচ্ছে। দেশগুলো হলো – জাপান, ইন্দোনেশিয়া,নেপাল, যুক্তরাষ্ট্র, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, শ্রীলংকা, নাইজেরিয়া, মালি, উজবেকিস্তান, জর্ডান ও তুরস্ক।

বাংলাদেশভারত নৌবাণিজ্যঃ

স্বাধীনতার পর থেকে এতদিন বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার নৌ প্রটোকলের আওতায় শুধু কলকাতা-নারায়ণগঞ্জ-কলকাতা নৌপথে বাণিজ্য হতো। এখন কলকাতা ছাড়াও ত্রিপুরা, মুর্শিদাবাদসহ বিভিন্ন অঞ্চলের সাথে নৌপথে বাণিজ্য সম্প্রসারণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। নৌ প্রটোকলের আওতায় ভারত বাংলাদেশের নদীপথ ব্যবহার করে কলকাতা-পান্ডু (আসাম); কলকাতা-করিমগঞ্জ (আসাম) এবং কলকাতা-আশুগঞ্জ-আগরতলায় পণ্য নেয়। মে ২০২০ ঢাকায় বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে নতুন দুটি নৌপথে বাণিজ্যের জন্য চুক্তি সাক্ষরিত হয়। নৌপথগুলো হলো-  রাজশাহী থেকে পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদের ধুলিয়ান পর্যন্ত এবং কুমিল্লার দাউদকান্দি থেকে ত্রিপুরার সোনামুড়া। এ চুক্তির আওতায় ৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ বাংলাদেশের কুমিল্লার দাউদকান্দি থেকে গোমতী নদীপথে ত্রিপুরার সিপাহিজলা জেলার সোনামুড়া পর্যন্ত ৯৩ কিলোমিটার দীর্ঘ নৌপথে ১০ টন সিমেন্ট পরিবহন করা হয়। দাউদকান্দি থেকে গোমতী নদী দিয়ে মুরাদনগর, দেবিদ্বার, ব্রাহ্মণপাড়া, বুড়িচং, কুমিল্লা সদর ও বিবিরবাজার হয়ে সোনামুড়ায় পণ্য নেয়া হয়। সেখান থেকে সড়কপথে সিমেন্ট নেয়া হয় ত্রিপুরার রাজধানী আগরতলায়। ৯৩ কিলোমিটার দীর্ঘ নৌপথটির মধ্যে ৮৯.৫ কিলোমিটার বাংলাদেশের ভেতর এবং বাকি অংশ ভারতে। অন্যদিকে রাজশাহী থেকে পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদের ধুলিয়ান পর্যন্ত ৭৮ কিলোমিটারের একটি নৌপথের অনুমোদন দেয়া হলেও ঐ পথটি সংক্ষিপ্ত করে রাজশাহীর গোদাগাড়ি উপজেলার সুলতানগঞ্জ থেকে মুর্শিদাবাদের মায়া নৌবন্দর পর্যন্ত পণ্য চলাচলের উদ্যোগ নেয় বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (BIWTA)। এ পথের দূরত্ব মাত্র ১৮ কিলোমিটার। অনেকটা আড়াআড়িভাবে পদ্মা নদী পাড়ি দেবে পণ্যবাহী নৌযান।

জাতিসংঘের তিন সংস্থার নির্বাহী বোর্ডের সদস্য নির্বাচিত বাংলাদেশঃ

সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে বাংলাদেশ জাতিসংঘের তিনটি অঙ্গ সংস্থা ইউএনডিপি, ইউএনএফপিএ ও ইউএনওপিএসের নির্বাহী বোর্ডের সদস্য নির্বাচিত হয়েছে। গত ১৪ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে ৫৪ সদস্যের জাতিসংঘের অর্থনৈতিক ও সামাজিক কাউন্সিলের (ইকোসক) আটটি অঙ্গ সংস্থার নির্বাচন হয়। জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী  মিশনের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, নির্বাচনে বাংলাদেশ ৫৪ ভোটের মধ্যে ৫৩ ভোট পায়। একটি সদস্য ভোটদানে বিরত ছিল । বাংলাদেশ ২০২১−২৩ মেয়াদে এই নির্বাহী বোর্ডে সদস্যের দায়িত্ব পালন করবে। আগামী ১ জানুয়ারি থেকে দায়িত্বের মেয়াদ শুরু হবে। বাংলাদেশ বর্তমানে ইউনিসেফ ও ইউএন উইমেনের নির্বাহী বোর্ডের সদস্য। এ ছাড়া জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশী স্থায়ী প্রতিনিধি রাবাব ফাতিমা বর্তমানে ইউনিসেফ নির্বাহী বোর্ডের প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করছেন।

শান্তি মিশনে শীর্ষেঃ

কয়েক দশক ধরে জাতিসংঘ শান্তি মিশনে গৌরবের সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছে বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীরা। ৩১ আগস্ট ২০২০ প্রকাশিত হালনাগাদ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বব্যাপী পরিচালিত জাতিসংঘ শান্তি মিশনে বর্তমানে শান্তিরক্ষী প্রেরণকারী দেশ হিসেবে শীর্ষে অবস্থান করছে বাংলাদেশ। বর্তমানে জাতিসংঘের বিভিন্ন মিশনে ১১৯টি দেশের শান্তিরক্ষীরা কাজ করছে। এসব দেশের মধ্যে সশস্ত্র বাহিনী ও পুলিশ মিলে বর্তমানে বাংলাদেশের সদস্য রয়েছে ৬,৭৩২ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৬,৪৭৭ জন ও নারী ২৫৫জন।

FAO’র আঞ্চলিক সম্মেলন (Food and Agriculture Organisation):

১−৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ ভুটান ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আয়োজন করে জাতিসঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার (FAO) ৩৫তম এশিয়া- প্যাসিফিক আঞ্চলিক সম্মেলন। এ সম্মেলনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ২০২২ সালে FAO’র ৩৬তম এশিয়া-প্যাসিফিক আঞ্চলিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশে। ১২ নভেম্বর ১৯৭৩ FAO-এ যোগদানের পর প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে এ সম্মেলনের আয়োজক হতে যাচ্ছে। FAO’র আঞ্চলিক সম্মেলন একটি আনুষ্ঠানিক ফোরাম, যেখানে আঞ্চলিক সদস্যদেশগুলোর কৃষিমন্ত্রীরা এবং অন্য জৈষ্ঠ্য কর্মকর্তারা খাদ্য ও কৃষিক্ষেত্রের চ্যালেঞ্জ ও সমাধান নিয়ে বৈঠকে মিলিত হন। প্রতি দুই বছর পর এ আঞ্চলিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

অন্যান্য সম্মেলন-বৈঠকঃ

International Atomic Energy Agency (IAEA) সাধারণ সভা-

আয়োজন : ৬৪তম সময়কাল : ২১-২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ স্থান : ভিয়েনা, অস্ট্রিয়া।

United Nations General Assembly (UNGA)-

আয়োজন : ৭৫তম সময়কাল : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ স্থান : নিউইয়র্ক, যুক্তরাষ্ট্র

প্রেসিডেন্ট : ভোলকান বোজকার (তুরস্ক)।

Estern Economic Forum (EEF)-

আয়োজন : ৬ষ্ঠ সময়কাল : ২-৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ স্থান : ভ্লাদিভস্তক, রাশিয়া।

SCO পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠক Shanghai Cooperation Organization-

সময়কাল : ৯-১০ সেপ্টেম্বর ২০২০। স্থান : মস্কো, রাশিয়া।

ASEAN Regional Forum (ARF)-

আয়োজন: ২৭তম সময়কাল : ১২ সেপ্টেম্বর ২০২০ স্থান : হ্যানয়, ভিয়েতনাম। 

নেপালের পাঠ্য বইয়ে নতুন মানচিত্রঃ

ভারতের আপত্তির মুখে ১৮ জুন ২০২০ সংবিধান সংশোধন করে উত্তরাখণ্ডের কালাপানি, লিপুলেখ গিরিপথ এবং লিম্পিয়াধুরাকে নিজেদের মানচিত্রে সংযোজন করে নেপাল। ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ সেই নতুন মানচিত্র সংবলিত পাঠ্যবই প্রকাশ করে নেপালের শিক্ষা অধিদপ্তর। নতুন বইয়ে নেপালের মোট ভূখণ্ড উল্লেখ করা হয় ১,৪৭,৬৪১.২৮ বর্গকিলোমিটার। এর মধ্যে শুধু কালাপানি এলাকা ধরা হয়েছে ৪৬০ বর্গকিলোমিটার।

হাইপারসনিক যুগে প্রবেশঃ

৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ ভারত উড়িষ্যার উপকূল থেকে Hypersonic Technology Demonstrator Vehicle (HTDV)-এর সফল উৎক্ষেপন করে। শব্দের চেয়ে প্রায় ৬ গুণ গতিসম্পন্ন চালকহীন এ আকাশযান মাত্র ২০ সেকেন্ডের মধ্যে ৩২.৫ কিলোমিটার উচ্চতায় উঠে যেতে পারে। এর সাহায্যে দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া সম্ভব। HTDV’র সফল পরীক্ষার মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া ও চীনের পর বিশ্বের চতুর্থ দেশ হিসেবে হাইপারসনিক যুগে প্রবেশ করে ভারত।

জাপানের প্রধানমন্ত্রী পদে রদবদল (শিনজো অ্যাবের পদত্যাগ):

জাপানের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি সময় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন শিনজো অ্যাবে। ২০০৬ সালে তিনি প্রথমবারের মতো  জাপানের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন। কিন্তু এক বছর পর স্বাস্থ্যগত কারণ দেখিয়ে তিনি পদত্যাগ করেন। এরপর ২০১২ সালে পুনরায় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন শিনজো অ্যাবে। ২০১৭ সালে তিনি আবার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত হন, যার মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিল সেপ্টেম্বর ২০২১। কিন্তু ২৮ আগস্ট ২০২০ স্বাস্থ্যগত কারণ দেখিয়ে পদত্যাগ করেন শিনজো অ্যাবে। ৬৫ বছর বয়সি শিনজো অ্যাবে শৈশব থেকেই ‘আলসারেটিভ কোলাইটিস’  রোগে ভুগছেন। তবে সম্প্রতি তার শারীরিক অবস্থার আরো অবনতি হয়। জাপানের সবচেয়ে কম বয়সি ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর জন্ম নেয়াদের মধ্যে প্রথম প্রধানমন্ত্রী ছিলেন শিনজো অ্যাবে। ১৯ নভেম্বর ২০১৯ জাপানের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি সময় এবং ২৪ আগস্ট ২০২০ জাপানের ইতিহাসে সবচেয়ে একটানা দীর্ঘদিন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করার নতুন রেকর্ড গড়েন শিনজো অ্যাবে।

♦ শিনজো অ্যাবে জাপানের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ৩,১৮৬ দিন । অন্যদিকে একটানা প্রধানমন্ত্রী হিসেবে এ দায়িত্ব পালন করেন ২,৮২২ দিন।

♦ অ্যাবের সবচেয়ে বড় অর্জন ছিল জাপানের দীর্ঘ সময় ধরে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা ধরে রাখা। ২০১২ সালে তিনি নির্বাচিত হওয়ার আগে জাপানের তিন দশকে ১৯ জনকে প্রধানমন্ত্রী পদে দেখেছিল।

নতুন প্রধানমন্ত্রী ইউশিহিদে সুগা

১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ জাপানের নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন ইউশিহিদে সুগা। তিনি বর্তমান রেইওয়া যুগের দ্বিতীয় এবং জাপানের ইতিহাসে ৯৯তম প্রধানমন্ত্রী। সুগা নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শিনজো অ্যাবের প্রধানমন্ত্রীত্বের মেয়াদকাল পূর্ণ করবেন, যা শেষ হবে সেপ্টেম্বর ২০২১। ৬ ডিসেম্বর ১৯৪৮ জাপানের উত্তরের আকিতা জেলার এক কৃষক পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন ইউশিহিদে সুগা। তার বাবা ছিলেন স্ট্রবেরি চাষি ও মা স্কুল শিক্ষিকা। ১৮ বছর বয়সে তিনি গ্রাম ছেড়ে চলে আসেন টোকিওতে। কার্ডবোর্ড কারখানায় কাজ করে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত পড়াশোনার খরচ চালান তিনি। ১৯৭৩ সালে টোকিও’র হোসেই নামক এক নৈশ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইনে স্নাতক সুগা সাংবাদিকদের কাছে ‘লৌহ দেয়াল’ হিসেবে পরিচিত।

রোহিঙ্গা ইস্যু ও মিয়ানমারঃ

♦ রোহিঙ্গা গণহত্যায় মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর সম্পৃক্ততার স্বীকারোক্তি দেয় চার সেনা সদস্য। তারা হলেন- মিও উইন তুন, জো নাইং তুন, চ্যাও মিও অং এবং পার তাও নি। মিয়ানমারের চার সেনা সদস্যের স্বীকারোক্তি থেকে এটা স্পষ্ট হয় যে, রোহিঙ্গাদের নির্মূল করার লক্ষ্য নিয়েই অভিযানে নেমেছিল দেশটির সেনাবাহিনী। বিচার প্রক্রিয়ায় এ ধরনের স্বীকারোক্তি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

♦ নিউইয়র্কভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ জানায়, ২০১৭ সালের আগস্টে অভিযানের সময় মিয়ানমারের সেনারা অন্তত ৪০০ গ্রাম ধ্বংস করে। এর মধ্যে অন্তত এক ডজন গ্রামের নাম এখন মানচিত্র থেকেও মুছে ফেলা হচ্ছে।

♦ আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতে গাম্বিয়ার দায়ের করা রোহিঙ্গা গনহত্যা সংক্রান্ত মামলায় যুক্ত হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করে কানাডা ও নেদারল্যান্ডস। ২ সেপ্টেম্বর ২০২০ কানাডার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফ্রাঁসোয়া ফিলিপে চ্যাম্পে ও নেদারল্যান্ডসের পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্টেফ ব্লক এক যৌথ বিবৃতিতে এ কথা জানান।

♦ রোহিঙ্গাদের হত্যা ও নির্যাতনের অভিযোগে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (ICC) মিয়ানমারের বিরুদ্ধে যে শুনানি হবে, সেটি যেন নেদারল্যান্ডসের দ্য হেগের পরিবর্তে অন্য কোনো দেশে, বিশেষ করে বাংলাদেশে আদালত বসিয়ে করা হয়, সে রকম একটি আবেদন পেশ করে রোহিঙ্গাদের পক্ষে কাজ করা আইনজীবীরা।

♦ মিয়ানমারের সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রীয় নিপীড়ন মেনে নেয়ায় দেশটির ‘ডি-ফ্যাক্টো’ নেত্রী স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চিকে ‘সাখারভ প্রাইজ কমিউনিটি’র তালিকা থেকে বাদ দেয় ইউরোপীয় পার্লামেন্ট। ১৯৯০ সালে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পাওয়ার এক বছর আগে মিয়ানমারের ‘গণতন্ত্রপন্হী’ নেত্রীকে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট এ পুরস্কার দেয়। ইউরোপীয় পার্লামেন্টের মানবাধিকারবিষয়ক সর্বোচ্চ এ পুরস্কারের তালিকা থেকে বাদ পড়ায় এখন থেকে পুরস্কার জয়ীদের কোনো অনুষ্ঠানে অংশ নিতে পারবেন না সুচি।

আফগান তালেবান শান্তি আলোচনাঃ

১২ সেপ্টেম্বর ২০২০ কাতারের রাজধানী দোহায় মার্কিন মধ্যস্থতায় আফগানিস্তান সরকার ও তালেবান প্রতিনিধিদের মধ্যে প্রথমবারের মতো ঐতিহাসিক শান্তি আলোচনা শুরু হয়। আফগানিস্তানের হাই কাউন্সিল ফর ন্যাশনাল রিকনসিলিয়েশনের চেয়ারপারসন আবদুল্লাহ, তালেবানের ডেপুটি লিডার মোল্লা আবদুল গনি বারাদার ও মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বৈঠকে তিন পক্ষের প্রতিনিধিত্ব করেন।

ক্রাইস্টচার্চ হামলার ঐতিহাসিক রায়ঃ

১৫ মার্চ ২০১৯ জুমার নামাজের আগ মুহূর্তে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চ এলাকার দুটি মসজিদে বন্দুক হামলা চালায় ২৯ বছর বয়সি অস্ট্রেলিয়ান নাগরিক ব্রেন্টন হ্যারিসন টারেন্ট। এতে পাঁচ বাংলাদেশিসহ ৫১ জন নিহত হয়। ঐ ঘটনায় অভিযুক্ত করে ২৭ আগস্ট ২০২০ তাকে প্যারোলবিহীন আমৃত্যু কারাদণ্ড প্রদান করে নিউজিল্যান্ডের একটি আদালত। দেশটির ইতিহাসে সন্ত্রাসবাদের অভিযোগে প্যারোল ছাড়া আমৃত্যু বা যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের শাস্তি দেয়ার ঘটনা এটাই প্রথম। আমৃত্যু বা যাবজ্জীবন কারাদণ্ডই দেশটির আইনে সর্বোচ্চ সাজা। দেশটির বিচারব্যবস্থায় মৃত্যুদণ্ড দেয়ার কোনো সুযোগ নেই। এর আগে নিউজিল্যান্ডে উইলিয়াম বেল নামে তিন খুনের এক আসামিকে প্যারোল ছাড়া ৩০ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছিল। সেটাই ছিল এতদিন সে দেশের ইতিহাসে দীর্ঘতম মেয়াদের কারাদণ্ড।

ইরানে অতিরিক্ত ইউরেনিয়াম মজুদঃ

Joint Comprehensive Plan of Action ((JCPOA) শীর্ষক একটি চুক্তি অনুসারে, ইরান প্রায় ২০৩ কিলোগ্রাম ইউরেনিয়াম মজুত করতে পারবে। কিন্তু জাতিসংঘের আণবিক শক্তি সংস্থা (IAEA) ৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ জানায়, দেশটি এ সীমার চেয়ে প্রায় ১০ গুণ বেশি ইউরেনিয়াম মজুত করেছে। ইরানের দুটি পারমাণবিক স্থাপনা পরিদর্শনের অনুমতি দেয়ার পর IAEA এ তথ্য জানায়। সদস্য দেশগুলোকে IAEA’র পাঠানো গোপন নথিতে দেখা যায়, ২০ মে ২০২০ পর্যন্ত ইরানের ইউরেনিয়াম মজুত ছিল ১,৫৭১ কিলোগ্রাম। আর ২৫ আগস্ট ২০২০ এ ইউরেনিয়ামের পরিমাণ গিয়ে ঠেকে ২,১০৫ কিলোগ্রামে।

নারী ভোটাধিকারের শতবর্ষঃ

২১ মে ১৯১৯ মার্কিন কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে এবং ৪ জুন ১৯১৯ উচ্চকক্ষ সিনেটে পাস হয় দেশটির সংবিধানের ১৯তম সংশোধনী। ২৬ আগস্ট ১৯২০ আনুষ্ঠানিকভাবে তা কার্যকর হয়। এর মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের সকল বর্ণ-শ্রেণির নারীরা ভোটাধিকার লাভ করে। ২৬ আগস্ট ২০২০ পালিত হয় মার্কিন নারীদের ভোটাধিকার লাভের শতবর্ষ ।

লাদাখ নিয়ে অশান্তিতে ভারতচীনঃ

সীমান্ত উত্তেজনা প্রশমনে ভারত ও চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠক ‘সফল ও খোলামেলা’ হলেও পূর্ব লাদাখের পরিস্থিতি অপরিবর্তিত। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা (এলএসি) বরাবর উত্তেজনা কমেনি। চীনও নিয়ন্ত্রণরেখা থেকে পিছিয়ে যাওয়ার কোনো ইঙ্গিত দেয়নি। ইঙ্গিত নেই কোনো তরফেই সেনা প্রত্যাহারেরও। রাশিয়ার মস্কোয় গত ১০ সেপ্টেম্বর ২০২০ বৈঠকে বসেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর ও চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই। তার আগে মস্কোতেই বৈঠক করেন ভারত ও চীনের দুই প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ও উই ফেংহি। দুই দফার বৈঠকেরই প্রথম পর্যায়ে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ উপস্থিত ছিলেন। সীমান্ত শান্তির স্বার্থে সেখানে দুই দেশ সেনা ও কূটনৈতিক স্তরে আলাপ−আলোচনার প্রয়োজনীয়তা মেনে নিলেও কোনো পক্ষই জুন পূর্ববর্তী অবস্থানে ফিরে যাওয়ার ব্যাপারে আগ্রহ দেখাইনি। ১০ সেপ্টেম্বর জয়শঙ্কর−ওয়াং ই বৈঠকটি চলে গভীর রাত পর্যন্ত। ১১ সেপ্টেম্বর সকালে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে দেওয়া বিবৃতিতে বলা হয়, আলোচনা খোলামেলা ও সফল হয়েছে।পাঁচটি বিষয়ে দুই দেশ একমত হয়েছে। সেগুলোর মধ্যে রয়েছে অতীত চুক্তি ও প্রটোকল মেনে চলা, সংঘাতপূর্ণ সম্ভাবনা এড়িয়ে চলা, উত্তেজনা  কমাতে আস্থাবর্ধক কর্মসূচি গ্রহণ, মতবিরোধকে সংঘর্ষে পরিণত হতে না দেওয়া ও ধারাবাহিক আলোচনা চালিয়ে যাওয়া। এর আগে পূর্ব লাদাখে দুই দেশের সেনা উপস্থিতি নিয়ে অশান্তি ছড়িয়ে পড়ে। ভারতের দাবি, এলএসি বরাবর প্রচুর পরিমাণে (অন্তত ৫০ লাখ) সেনা মোতায়েন করে চীন ১৯৯৩ ও ১৯৯৬ সালের চুক্তি লঙ্ঘন করেছে। চীনের দাবি, ভারতীয় বাহিনী গুলি ছোড়াসহ বিভিন্ন ধরনের প্ররোচনা দিচ্ছে সীমান্তে। পূর্ব লাদাখের পরিস্থিতি আপাতত এই রকম : প্যাংগং লেকের একধারে ফিঙ্গার ১ থেকে ৮ পর্যন্ত যে এলাকা দুই দেশের টহলদারির আওতায় ছিল, যা ছিল দুই দেশের ‘বাফার’, তার অর্ধেক (ফিঙ্গার ৪ থেকে ৮) জুন মাসে চীন দখল করে নিজেদের বলে দাবি জানাতে থাকে। সেই থেকে ওই অঞ্চলে ভারতীয় বাহিনীর টহলদারিতে তারা বাধা দিচ্ছে। এর পাল্টা গত আগস্টের শেষ দিক থেকে সেপ্টেম্বর মাসের শুরুতে প্যাংগং লেকের দক্ষিণাঞ্চলের উঁচু শিখরগুলো ভারতীয় জওয়ানেরা দখল করে নেন। ৭ সেপ্টেম্বর থেকে চীন দুবার ওই সব উঁচু ঘাঁটি পুনর্দখলের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। তারা গুলিও ছোড়ে, যা এত বছর হয়নি।

পরলোকে প্রণব মুখার্জি (১১ ডিসেম্বর ১৯৩৫৩১ আগস্ট ২০২০):

ভারতের ১৩তম ও একমাত্র বাঙালি রাষ্ট্রপতি (২৫ জুলাই ২০১২-২৫ জুলাই ২০১৭)। প্রায় পাঁচ দশকের রাজনৈতিক জীবনে কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রণালয়, প্রতিরক্ষা, পররাষ্ট্র এবং পরিকল্পনা কমিশনের দায়িত্ব পালন করেন তিনি।

জন্ম : ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বীরভূম জেলার কীর্ণাহারের অদূরের মিরিটি গ্রামে • বাবা : কামদা কিঙ্কর মুখার্জি মা : রাজলক্ষ্মী দেবী • স্ত্রী: বাংলাদেশের নড়াইলের মেয়ে শুভ্রা মুখার্জি • বিয়ে : ১৩ জুলাই ১৯৫৭ • শিক্ষা : কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞান ও ইতিহাসে মাস্টার্স ডিগ্রি।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ২০২০ঃ

 

রিপাবলিকান প্রার্থী

ডেমোক্র্যাটিক প্রার্থী

প্রেসিডেন্ট

ডোনাল্ড ট্রাম্প

বয়স-৭৪ বছর, জন্ম : কুইন্স, নিউইয়র্ক, ১৪ জুন ১৯৪৬। ইউনিভার্সিটি অব পেনসিলভানিয়া থেকে ফিন্যান্সে স্নাতক (১৯৬৮) বাবার আবাসন ব্যবসায় যোগদান (১৯৭১), পরে কোটিপতি হন ৩ বিয়ের মধ্যে প্রথম বিয়ে (১৯৭৭)। প্রথম সন্তানের জন্ম (১৯৭৮) নিউইয়র্কে ট্রাম্প টাওয়ার নির্মাণ (১৯৮৩)। ডেমোক্র্যাটিক দলে যোগদান (১৯৮৭ পর্যন্ত) রিপাবলিকান পার্টিতে যোগ (১৯৮৭-১৯৯৯) রিফর্ম পার্টিতে (১৯৯৯-২০০১) পুনরায় ডেমোক্র্যাটিক পার্টিতে (২০০১-২০০৯) টিভি রিয়েলিটি শোর হোস্ট (২০০৪-২০১৫)। পুনরায় রিপাবলিকান পার্টিতে যোগদান (২০১২) প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত (২০১৬)

জো বাইডেন

বয়স-৭৮ বছর, জন্ম: স্ক্রান্টন, পেনসিলভানিয়া; ২০ নভেম্বর ১৯৪২। ডেলাওয়ার ইউনিভার্সিটি থেকে স্নাতক, ‘ল’ স্কুলে যোগদান (১৯৬৫)। নিলিয়া হান্টারের সাথে বিয়ে (১৯৬৬), তাদের ঘরে তিন সন্তান। নিউ ক্যাসেল কাউন্টি নির্বাচনে প্রথম জয় (১৯৭০)। ২৯ বছর বয়সে প্রথম সিনেটর নির্বাচিত হন (১৯৭২)। দুর্ঘটনায় স্ত্রী-মেয়ের মৃত্যু (১৯৭২)। বর্তমান স্ত্রী জিল জ্যাকবসকে বিয়ে (১৯৭৭)। প্রেসিডেন্ট পদের মনোনয়নে ব্যর্থ (১৯৮৮ ও ২০০৮)। ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে নির্বাচিত ও পুনর্নির্বাচিত (২০০৮ ও ২০১২)। ডেমোক্র্যাটিক পার্টি থেকে প্রেসিডেন্ট প্রার্থী মনোনীত (২০২০)।

 

ভাইস প্রেসিডেন্ট

মাইক পেন্স

৬১ বছর

 জন্ম : কলম্বাস, ইন্ডিয়ানা; ৭ জুন ১৯৫৯। তারুণ্যে অধ্যাত্ম ও ডেমোক্র্যাটপন্হী হলেও নব্বইয়ের দশকে রিপাবলিকান পার্টিতে যোগ দেন। টিভি ও রেডিও উপস্থাপক ছিলেন। ২০০০ সালে প্রতিনিধি পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন। ২০১৩-২০১৬ পর্যন্ত ইন্ডিয়ানা অঙ্গরাজ্যের ৫০তম গভর্নর ছিলেন।

কমলা হ্যারিস

৫৬ বছর ।

জন্ম: ২০ অক্টোবর ১৯৬৪; ওকল্যান্ড, ক্যালিফোর্নিয়া। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে তৃতীয় নারী ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রার্থী। প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারী এবং প্রথম কোনো ভারতীয় বংশোদ্ভূত, যিনি যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান দু’দলের একটি থেকে ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। বাবা জ্যামাইকান বংশোদ্ভূত ডোনাল্ড জে হ্যারিস এবং মা ভারতীয় বংশোদ্ভূত শ্যামলা গোপালান।

প্রেসিডেন্সিয়াল বিতর্কঃ

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের বিতর্ক সংস্কৃতি শুরু হয় ১৯৬০ সালের নির্বাচনের ঠিক পূর্ব মুহুর্তে এবং সে সময় দুই প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন রিচার্ড নিক্সন এবং জন এফ কেনেডি। তাদের মধ্যকার বিতর্কটি ছিল জাতীয় পর্যায়ে টেলিভিশনে প্রচারিত প্রথম প্রেসিডেন্সিয়াল বিতর্ক, যা আজ মার্কিন নির্বাচনের সবচেয়ে ‍গুরুত্বপূর্ণ সংস্কৃতি হয়ে উঠেছে। কেবল তাই নয়, বলা যায় ফলাফল নির্ধারণের সবচেয়ে প্রভাবশালী একটি মাধ্যমও এটা। বিতর্কের ধরন সবসময় একই। উপস্থাপক প্রশ্ন করেন এবং প্রার্থীরা উত্তর দেন। যদিও ১৯৬৪-১৯৭২ সাল পর্যন্ত প্রেসিডেন্সিয়াল বিতর্ক বন্ধ ছিল। এরপর ১৯৭৬ সাল থেকে পুনরায় শুরু হয় প্রেসিডেন্সিয়াল বিতর্ক, যা অদ্যাবধি চালু রয়েছে। ২০২০ সালের বিতর্ক প্রেসিডেন্সিয়াল-

প্রথম দফা     : ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০; ওহাইও

দ্বিতীয় দফা   : ১৫ অক্টোবর ২০২০; ফ্লোরিডা

তৃতীয় দফা   : ২২ অক্টোবর ২০২০; টেনিসি

ভাইস প্রেসিডেন্সিয়াল ৭ অক্টোবর ২০২০; ইউটা

কমলাকে নিয়ে কমিক বইঃ

৩ নভেম্বর ২০২০ অনুষ্ঠিতব্য ৫৯তম মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাটদের ভাইস প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী ভারতীয় বংশোদ্ভূত কমলা হ্যারিস। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে তিনিই প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারী ভাইস প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী। ২১ অক্টোবর ২০২০ তাকে নিয়ে কমিক বই প্রকাশ করবে যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত প্রকাশনা সংস্থা টাইডাল ওয়েব প্রডাকশন। এর শিরোনাম দেওয়া হয়েছে Female Force : Kamala Harris । পুরো বইটিই তাকে নিয়ে। শৈশবে তার বেড়ে ওঠা থেকে শুরু করে ঐতিহাসিক মনোনয়ন পাওয়ার বিভিন্ন ঘটনা উঠে এসেছে বইটিতে।

Wolf Warrior Diplomacy:

বর্তমানে বিশ্বের প্রতিটি প্রান্তে লক্ষ্য করা যায় চীনের আগ্রাসি কূটনৈতিক আচরণ। দেশটির এ কূটনৈতিক আগ্রাসি আচরণকে বলা হচ্ছে Wolf Warrior বা ‘নেকড়ে যোদ্ধা কূটনীতি’। ব্যাপারটা মূলত শুরু করেছিলেন চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ঈ। ধারণা করা  হয়, তিনি তার অধঃস্তনদের উদ্দীপ্ত করতে এক আসরে বলেছিলেন, চীনের ওপর পশ্চিমা কূটনৈতিক আক্রমণের বিরুদ্ধে আগ্রাসি জবাব দেয়ার মতো নিজেদের উপযুক্ত করে তুলতে। আর সেখানে চীনা নেকড়ে যোদ্ধা সিনেমাটার কথা খেয়াল রেখে তার মতো Wolf Warrior হতে বলেছিলেন। আর সেই থেকে চীনা বা পশ্চিমা কূটনৈতিক মহলে চালু হয়ে যায় নতুন শব্দ Wolf Warrior Diplomacy বা নেকড়ে যোদ্ধা কূটনীতি।

পোলিও মুক্ত বিশ্বঃ

২৫ আগস্ট ২০২০ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) আফ্রিকা অঞ্চলকে পোলিওমুক্ত ঘোষণা করে। এর মাধ্যমে পোলিওমুক্ত  বিশ্বের পথে অনেক দূর এগিয়ে গেল সংস্থাটি। কারণ বিশ্বব্যাপী WHO’র ৬টি অঞ্চলের মধ্যে ৫টি অঞ্চলই এখন পোলিওমুক্ত। এ প্রেক্ষাপটে প্রাণঘাতী পোলিও রোগ, এর প্রতিষেধক এবং বিশ্বব্যাপী পোলিও নির্মূলের ইতিবৃত্ত তুলে ধরা হলো এখানে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (WHO) সদস্য দেশ ১৯৪টি। এর মধ্যে বর্তমানে পোলিওর অস্তিত্ব রয়েছে মাত্র দুটি দেশে- পাকিস্তান ও আফগানিস্তান। WHO আশা করছে, এ দুটি দেশ থেকেও পোলিও নির্মূল সম্ভব হবে। আর যদি করা সম্ভব হয়, সেটি হবে মানবদেহে কোনো রোগ নির্মূলের দ্বিতীয় ঘটনা। এর আগে ৯ ডিসেম্বর ১৯৭৯ বিশ্বকে গুটিবসন্তমুক্ত ঘোষণা করা হয়।

WHO অঞ্চলভিত্তিক সদস্য পোলিওমুক্ত ঘোষণাঃ

অঞ্চল

সদস্য

পোলিওমুক্ত ঘোষণা

আমেরিকা

৩৫

২৯ সেপ্টেম্বর ১৯৯৪

পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরীয়

৩৭

২৯ অক্টোবর ২০০০

ইউরোপ

৫৩

২১ জুন ২০০২

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া

১১

২৭ মার্চ ২০১৪

আফ্রিকা

৪৭

২৫ আগস্ট ২০২০

পূর্ব ভূমধ্যসাগরীয়

২১

২৭ মার্চ ২০১৪ বাংলাদেশসহ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের ১১টি দেশকে আনুষ্ঠানিকভাবে পোলিও মুক্ত ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

গ্রহাণুর বুকে প্রথম স্পন্দনঃ

মহাকাশে এতদিন যাদের নিষ্প্রাণ মনে করা হতো, তাদের মধ্যে সম্প্রতি প্রাণের স্পন্দন খুঁজে পায় নাসার মহাকাশযান। জ্যোতির্বিজ্ঞানীদের কাছে এটি অনেক বড় ঘটনা। কারণ এবারই প্রথম ঘটল এমন ঘটনা। আদ্যোপান্ত পাথুরে গ্রহাণু 101955 Bennu – তে এ প্রাণের স্পন্দন আবিষ্কার করে নাসার মহাকাশযান OSIRIS-REx। ১১ সেপ্টেম্বর ১৯৯৯ LINEAR প্রকল্প গ্রহাণুটিকে আবিষ্কার করে। ৩ ডিসেম্বর ২০১৮ গ্রহাণুটিতে পৌঁছায় মহাকাশযান OSIRIS-REx।

সৌদিকে টপকে বিশ্বের দ্বিতীয় শীর্ষ অপরিশোধিত জ্বালানি তেল উত্তোলক রাশিয়াঃ

চলতি বছরের জুনে সবচেয়ে বেশি অপরিশোধিত জ্বালানি তেল উত্তোলন করে তালিকায় শীর্ষ অবস্থান ধরে রেখেছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে বদলে গেছে দ্বিতীয় ও তৃতীয় অবস্থান। আগে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অপরিশোধিত জ্বালানি তেল উত্তোলনকারী দেশ ছিল সৌদি আরব। গত জুনে সৌদি আরবকে টপকে এ তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে উঠে এসেছে রাশিয়া। আর তালিকায় সৌদির অবস্থান তৃতীয়। জয়েন্ট অর্গানাইজেশনস অব ইনিশিয়েটিভ (জেওডিআই) সম্প্রতি এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করে। প্রতিবেদন অনুযায়ী, চলতি বছরের জুনে রাশিয়ার কূপগুলো থেকে প্রতিদিন গড়ে ৮৭ লাখ ৮৮ হাজার ব্যারেল অপরিশোধিত জ্বালানি তেল উত্তোলন হয়েছে। এর বিপরীতে একই সময়ে সৌদি আরবের উত্তোলনের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৭৫ লাখ ব্যারেলে।

টিকার দিকে তাকিয়ে বিশ্বঃ

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (WHO) সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, বর্তমানে বিভিন্ন দেশে ১৯০টির বেশি করোনা টিকার প্রকল্প চালু রয়েছে। এর মধ্যে ১৪২টি টিকা এখনও প্রি-ক্লিনিক্যাল পর্যায়ে আছে। অর্থাৎ মানবদেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শুরু হয়নি। ক্লিনিক্যাল (মানবদেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগ) পর্যায়ে আছে ৫৬টি। এর মধ্যে প্রথম ধাপে আছে ২৯টি, দ্বিতীয় ধাপে ১৮টি আর তৃতীয় (চূড়ান্ত) ধাপে আছে ৭টি। ক্লিনিক্যাল পরীক্ষার তৃতীয় ধাপে পৌঁছানো সাতটি ভ্যাকসিনের তিনটি চীনের। মার্কিন অর্থনৈতিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান মিলকেন ইনস্টিটিউটের তথ্যানুযায়ী, বিশ্বে করোনাভাইরাসের জন্য ১৯০টি ভ্যাকসিন ও ২৬৩ ধরনের চিকিৎসা পদ্ধতি উন্নয়নে কাজ চলছে। এর মধ্যে  যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও ব্রিটিশ-সুইডিশ ওষুধ কোম্পানি অ্যাস্ট্রাজেনেকার জোট ভ্যাকসিন তৈরিতে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে। এছাড়া এ তালিকায় থাকা চীনের সিনোভ্যাক, ক্যানসিনো ও সিনেফার্ম, যুক্তরাষ্ট্রের মডার্না, ফাইজার, ইনোভিও ও নোভাভ্যাক্স; রাশিয়ার গামালিয়া রিসার্চ ইনস্টিটিউট এবং জার্মানির কিওরভ্যাক-এর সম্ভাব্য কয়েকটি টিকা আলোচনার সৃষ্টি করেছে। নতুন পথের দিশা দেখাচ্ছে ভারতের তৈরি টিকা Covaxin । ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিকেল রিসার্চ (ICMR) এবং পুনের ভারত বায়োটেক ইন্টারন্যাশনালের যৌথভাবে তৈরি করা করোনার এ টিকা মানুষ ছাড়াও বানরের শরীরে কাজ করছে।

রাশিয়ার ভ্যাকসিন নিরাপদ প্রমাণিতঃ

রাশিয়ার তৈরি করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন Sputnik-V নিরাপদ এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি করতে সক্ষম বলে প্রমাণিত হয়। সেপ্টেম্বর ২০২০ মেডিকেল জার্নাল ল্যানসেট এ বিষয়ে বিস্তারিত রিপোর্ট প্রকাশ করে। এর পাশাপাশি রাশিয়া এ ভ্যাকসিনের উন্নয়ন ঘটিয়ে ‘শুকনো সংস্করণ’ তৈরি করে আবারও বিশ্বকে চমকে দিয়েছে বলে জানানো হয়।

রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান স্টেট রিসার্চ সেন্টার অব ভাইরোলজি অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি (Vector) উদ্ভাবিত দেশটির দ্বিতীয় করোনা টিকার নাম EpiVacCorona.

ভ্যাকসিন সংগ্রহবিতরণ করবে UNICEF:

করোনা ভ্যাকসিন সগ্রহ ও বিতরণে কাজ করবে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভ্যাকসিনের ক্রেতা জাতিসংঘের শিশুবিষয়ক সংস্থা UNICEF। প্রতিবছরই UNICEF প্রায় ২ বিলিয়ন ভ্যাকসিন কিনে থাকে এবং প্রায় ১০০ দেশে তা সরবরাহ করে থাকে। এবার একই প্রক্রিয়ায় করোনার ভ্যাকসিনও ধনী দেশগুলোর পাশাপাশি গরিব দেশগুলোতে সমতার ভিত্তিতে পৌঁছে দিতে চায় UNICEF। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO), টিকার বৈশ্বিক জোট Global Alliance for Vaccination (GAVI), The Coalition for Epidemic Preparedness Innovations (CEPI), Pan American Health Organization (PAHO), বিশ্বব্যাংক, বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন এবং অন্য সংস্থাগুলোর সাথে সহযোগিতার ভিত্তিতে UNICEF কাজটি পরিচালনা করবে।

সুদানে ঐতিহাসিক শান্তিচুক্তিঃ

দীর্ঘ ১৭ বছর ধরে চলা সংঘাত অবসানের লক্ষ্যে দক্ষিণ সুদানের রাষ্ট্রপতি সালভা কির মায়ারডিটের তত্ত্বাবধানে ৩১ আগস্ট ২০২০ রাজধানী জুবায় সুদান সরকার ও প্রধান বিদ্রোহী গোষ্ঠীদের জোট সুদান বিপ্লবী ফ্রন্ট (SRF) প্রাথমিক শান্তি চুক্তিতে সম্মত হয়। নিরাপত্তা, জমির মালিকানা, ন্যায়বিচার, ক্ষমতা ভাগাভাগি ও যুদ্ধে ঘরবাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়া মানুষদের ফেরার ইস্যু নিয়ে চুক্তিটি আনুষ্ঠানিকভাবে সাক্ষরিত হবে ২ অক্টোবর ২০২০। এছাড়া চুক্তি অনুযায়ী বিদ্রোহী বাহিনীগুলোকে বিলুপ্ত করে তাদের যোদ্ধাদের সেনাবাহিনীতে নিয়োগ দেয়া হবে।

আমিরাতইসরাইলবাহরাইন চুক্তিঃ

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ ইহুদিবাদী রাষ্ট্র ইসরাইলের সাথে সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণে আনুষ্ঠানিক চুক্তি সাক্ষর করে দুই আরব দেশ- সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যস্থতায় হোয়াইট হাউসে সাক্ষরিত এ চুক্তির মধ্য দিয়ে তৃতীয় ও চতুর্থ আরব দেশ হিসেবে দেশ দুটি ইসরাইলের সঙ্গে পুরোপুরি স্বাভাবিক সম্পর্ক স্থাপনে অঙ্গীকারবদ্ধ হয়। এ আগে ১৯৭৯ সালে মিসর ও ১৯৯৪ সালে জর্ডান ইসরাইলের সঙ্গে চুক্তি সাক্ষর করে। এ চুক্তিকে ‘নতুন মধ্যপ্রাচ্যের সূর্যোদয়’ বলে অভিহিত  করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। অন্যদিকে ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু বলেন ‘এর মধ্যে শান্তির নতুন ভোরের সূচনা হলো।’ 

এক নজরে আমিরাতইসরাইলবাহরাইন চুক্তি

১৩ আগস্ট ২০২০ : মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ইসরাইলের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের ঘোষণা দেন।

১৬ আগস্ট ২০২০ : সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ইসরাইলের মধ্যে প্রথমবারের মতো টেলিফোন সার্ভিস চালু হয়।

২৯ আগস্ট ২০২০ : সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রেসিডেন্ট খলিফা বিন জায়েদ আল নাহিয়ান আমিরাত ও ইসরাইলের মধ্যে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার অংশ হিসেবে ১৯৭২ সালে জারি করা ইসরাইল  বয়কটের আইন বাতিল করেন।  

৩১ আগস্ট  ২০২০ :  ইসরাইল ও আমিরাতের মধ্যে ঐতিহাসিক বাণিজ্যিক ফ্লাইট চলাচল শুরু।

১১ সেপ্টেম্বর ২০২০ : মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ট ট্রাম্প বাহরাইন ও ইসরাইলের মধ্যে কুটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের ঘোষণা দেন।

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ :  ইসরাইলের সাথে সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণে আনুষ্ঠানিক চুক্তি সাক্ষর করে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন।

হামাসইসরাইল শান্তি চুক্তি

কাতারের মধ্যস্থতায় ৩১ আগস্ট ২০২০ ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের হামাসের মধ্যে একটি শান্তি চুক্তি সাক্ষরিত হয়। এ চুক্তি অনুযায়ী, আপাতত দুই পক্ষই একে অপরের বিরুদ্ধে কোনো রকম আক্রমণ চালাবে না। করোনাকালে সাময়িক সময়ের জন্য গাজা উপত্যকার সঙ্গে ইসরাইলি সেনার সংঘর্ষ কিছুটা কমলেও গত ৬ আগস্ট থেকে ফের তা শুরু হয়। কাতারের মধ্যস্থতায় আপাতত তার অবসান হলো বলেই মনে করা হচ্ছে। প্রসঙ্গত, ৬ আগস্ট ২০২০ গাজা ভূখণ্ড লক্ষ্য করে রকেট ছোড়ে ইসরাইল। এরপর প্রায় প্রতিদিনই হামাস-ইসরাইলি সৈন্যদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। দুই পক্ষই সীমান্তের দুই পারে রকেট ছুড়েছে। এ পরিস্থিতিতে হামাস ও ইসরাইলের মধ্যে মধ্যস্থতার চেষ্টা করে কাতার । তেলআবিতে দুই পক্ষের মধ্যে বৈঠক হয়।

Leave a Reply